supreme court

ওয়েবডেস্ক: তৃণমূল সাংসদ অনুপম হাজরা কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে আইনি লড়াইয়ে জয়ী হলেন। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে বিশ্বভারতীর এই অধ্যাপক নিজের চাকরি বাঁচাতে সক্ষম হলেন।

বোলপুর লোকসভার সাংসদ অনুপম বিশ্বভারতীর সহকারী অধ্যাপক হিসাবে কর্মরত ছিলেন। কয়েক বছর আগেই তাঁকে ছাঁটাই করা হয়। এই ঘটনার পর তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে একাধিক চিঠি লেখেন। কারণ প্রধানমন্ত্রীই বিশ্বভারতীয় আচার্য। কিন্তু তাঁর তরফে কোনো উত্তর আসেনি। অগত্যা, অনুপম সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানান। সর্বোচ্চ আদালত সেই মামলা গ্রহণ করলে তিনি নিজেই নিজের সওয়াল করেন।

Anupam Hazra

 

অনুমপের বিবাদী পক্ষে ছিল কেন্দ্রীয় সরকার, মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রক, বিশ্বভারতী এবং ইউজিসি। তাঁর অভিযোগ ছিল, বেআইনি ভাবে ‘অফিস অব প্রফিট’-এর কারণ দর্শিয়ে তাঁকে ওই পদ থেকে ছাঁটাই করা হয়েছে। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের রায়ে তিনি ওই পদে পুনর্বহাল হলেন।

অনুপম বলেন, এই রায়ে নীতি-নৈতিকতার জয় হল। পাশাপাশি তিনি বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে দুর্নীতির প্রসঙ্গও উত্থাপন করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হওয়াতেই এই ধরনের দুর্ভাগ্যজনক ঘটনার শিকার হয়েছিলেন বলে তিনি সংবাদ মাধ্যমের কাছে মন্তব্য করেন।

অনুপমের অভিযোগ, সারা দেশের প্রায় ৫০ জন অধ্যাপক বিজেপির সাংসদ। কিন্তু তাঁদের ক্ষেত্রে এই ধরনের অফিস অব প্রফিট-এর নীতি কার্যকর হয়নি। তিনি এক জন বিজেপি-বিরোধী দলের সাংসদ হওয়ার কারণেই এই ধরনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত ঘটনার শিকার হয়েছিলেন।

আক্রমণের সুর চড়িয়ে অনুপমের দাবি, “মোদী দুর্নীতির বিরুদ্ধে যত কথাই বলুন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মতো গুরুত্বপূর্ণ জায়গাতেও তিনি দুর্নীতি-রোধে ব্যর্থ”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here