hyderabad baby

হায়দরাবাদ: ফের ভারতে কুসংস্কারের বলি হল ছোট্টো শিশু। ঘটনাটি ঘটেছে হায়দরাবাদে। ‘অশুভ শক্তি’ তাড়ানোর জন্য একটি তিন মাসের শিশুর শিরশ্ছেদের অভিযোগে গ্রেফতার করা হল এক দম্পতিকে।

হায়দরাবাদ পুলিশ জানিয়েছে, স্থানীয় এক ভিখারি দম্পতির তিন মাসের ছোট্টো মেয়েকে অপহরণ করে ৪০ বছর বয়সি ট্যাক্সিচালক রাজশেখর। পরের দিন তার বাড়ির ছাদ থেকেই উদ্ধার হয় ওই শিশুর মাথা।

পুলিশের এক আধিকারিক জানান, কুসংস্কারাচ্ছন্ন রাজশেখর তাঁর স্ত্রী, বছর ৩৫-এর শ্রীলতার স্বাস্থ্যের ব্যাপারে বেশ চিন্তিত থাকত। ২০১৬ সালে একটি আদিবাসি মেলায় যায় দু’জনে এবং সেখানে এক তান্ত্রিকের সঙ্গে তাদের দেখা হয়। ওই তান্ত্রিক তাদের নির্দেশ দেয় যে শ্রীলতার শরীর থেকে ‘অশুভ শক্তি’ তাড়ানোর জন্য একটি শিশুর মাথা ‘উৎসর্গ’ করতে হবে। এর পরে আরও কয়েক জন তান্ত্রিকের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিল রাজশেখর কিন্তু বিশেষ লাভ হয়নি তাতে। অগত্যা প্রথম তান্ত্রিকের নির্দেশমতো কাজ করার পরিকল্পনা করে সে।

গত ৩১ জানুয়ারি ট্যাক্সি চালানোর সময়ে রাজশেখর দেখে ওই শিশুটি তার বাবা-মায়ের সঙ্গে ফুটপাথে ঘুমিয়ে আছে। সে সেখান থেকেই ওই শিশুকে অপহরণ করে এবং হায়দরাবাদ শহরের উপকণ্ঠে মুসি নদীর ধারে নিয়ে যায়। সেখানে শিশুটিকে মেরে, তার মাথা এবং ধড় আলাদা করার কাজ করে ফেলে রাজশেখর। নিজের ছুরি এবং দেহের বাকি অংশ নদীতে ফেলে দিয়ে শিশুর মাথাটি একটি ব্যাগে করে ঘরে নিয়ে আসে।

এখানেই শেষ নয়। বাড়ি আসার পর সারা রাত ওই শিশুটির মাথা নিয়ে একটি বিশেষ পুজোও করে সস্ত্রীক রাজশেখর। তার পরে মাথাটি ছাদের এমন একটা জায়গায় রেখে দেয়, যাতে সূর্যের প্রথম আলো ওই মাথার ওপরে এসে পড়ে। পরের দিন রাজশেখর কাজে বেরিয়ে গেলে, তার শাশুড়ি ওই মাথাটি দেখতে পান এবং তিনি ব্যাপারটা সবাইকে জানান। তার পরেই তদন্ত শুরু করে পুলিশ।

বারবার এই দম্পতিকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরেই এই খুনের ঘটনার সমাধান হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here