ওয়েবডেস্ক: শেষ হতে বসা বছরে সামাজিক ক্ষমতায়ন বা ব্যক্তিত্বের জাগরণে টপ নিউজ মেকারের শিরোপা ছিনিয়ে নিয়েছে #মিটু।

বছরের শুরু থেকেই বিদেশি সংবাদ মাধ্যমে সৌজন্যে এই প্রতিবাদের মঞ্চ এ দেশেও যথেষ্ট পরিচিতি আদায় করে নিয়েছিল। সোশ্যাল মিডিয়ায় পুরুষের হাতে যৌন হয়রানির শিকার সমাজের প্রতিষ্ঠিত নারীর প্রতিবাদের নয়া অঙ্গন। এর প্রসারে এতটাই বিদ্যুৎ বেগে হয়েছে যে, কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানেই এই নয়া মঞ্চ আন্দোলনের মূলধারার সঙ্গে জুড়ে গিয়েছে। তা না হলে সংবাদ মাধ্যমের প্রচারে এতটা জায়গা করে নিতে পারত না #মিটু।

M J Akbar and Pallavi Gogoi

এ দেশে বলিউডে থেকে সূচনা, আরও স্পষ্ট করে বললে এক সময়ের হিন্দি ছবি অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্তের #মিটু, যার নিশানায় ছিলেন অভিনেতা নান পটেকর, সেটাই সব থেকে বেশি আলোড়ন সৃষ্টি করে। কিন্তু ফলাফলের দিক থেকে অনেকটাই এগিয়ে আছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে #মিটু।

tanushree Dutta and nana patker

তৎকালীন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী তথা প্রবীণ সাংবাদিক এম জে আকবরের বিরুদ্ধে #মিটু মঞ্চে প্রতিবাদ জানান আর এক বিশিষ্ট মহিলা সাংবাদিক বীণা রামানি। প্রতিবাদীর তালিকা ক্রমশ দীর্ঘায়িত হতে থাকে। জুড়ে যায় আরও এক কুড়ি নাম। আকবর মন্ত্রী হওয়ায় রাজনৈতিক রং পেয়ে যায় ওই অভিযোগ। কিন্তু #মিটুর স্বতন্ত্রতাকে উপেক্ষা করার নয়। বাধ্য হয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দেন (বা দেওয়ানো হয়) আকবরকে। পরে তিনি এডিটর্স গিল্ড থেকেও বহিষ্কৃত হন।

আরও পড়ুন: ২০১৮-র আর্থিক ক্ষেত্রে টপ নিউজ মেকারের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে চলে গেলেন মুকেশ অম্বানি! প্রথম স্থানে কে?

সাহিত্য, ক্রীড়া, সংস্কৃতি এমনকী দূরদর্শন বা টাটা মোটর্সের মতো একাধিক বৃহৎ সংস্থাতেও #মিটু-কে অবলম্বন করে একাংশের যৌন হয়রানির শিকার এই যুদ্ধ স্বাভাবিক ভাবেই সামাজিক ক্ষমতায়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিয়ে প্রায় অর্ধবর্ষ সময় ধরে।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন