rajanikant

ওয়েবডেস্ক: সমস্ত জল্পনাকে ভেঙে দিয়ে রবিবারই তামিল সুপারস্টার রজনীকান্ত ঘোষণা করেছেন নিজের দল তৈরি করবেন। লড়বেন আসন্ন তামিলনাড়ু বিধানসভা ভোটে। কিন্তু রাজনীতিতে পা তার এই নতুন নয়। অভিনেতার দাবি অনেক আগেই তিনি তামিল রাজনীতিতে সরাসরি অংশ নিয়েছেন।

এক সাংবাদপত্রকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে রজনী জানিয়েছেন, ১৯৯৬ সালে তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন কলাইঙ্গার করুনানিধির নেতৃত্বাধীন ডেএমকে হয়ে প্রচার করবেন। এর ফলে তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক তিক্ততায় পৌঁছয়।। সেই সময় তিনি মন্তব্য করেন, ‘‘জয়ললিতা যদি ক্ষমতায় আসেন তবে তামিলনাড়ুকে ভগবানও বাঁচাতে পারবে না।’’  শুধু রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ নয় তামিল সুপারস্টারেরও দাবি তাঁর ওই মন্তব্যই নির্বাচনে জয়ললিতাকে ‘হারিয়ে’ দিয়েছিল।

আরও পড়ুন : দল গঠন করবেন, ভোটে লড়বেন, জানিয়ে দিলেন রজনীকান্ত

সে বছর তামিলনাড়ুর ক্ষমতা দখল করেছিল ডিএমকে-তামিল মনিলা কংগ্রেসের জোট। তবে ‘আম্মা’-র সঙ্গে তাঁর বৈরিতার সম্পর্ক বেশিদন টেকেনি। এটাই ছিল রজনীর রাজনীতিতে সরাসরি যোগদান।

২০০২ সালে তিনি ঠিক করেন কাবেরি জলবণ্টন ইস্যু নিয়ে ‘গণ আন্দোলন’ গড়ে তুলবেন। তাঁর মত ছিল হিমালয় থেকে আসা নদীগুলোক সঙ্গে কাবেরিকে যোগ করে দেওয়া হোক। হিন্দুর রিপোর্ট অনুযায়ী, তামিল সুপারস্টার নদী সংযোগ প্রকল্পে এক কোটি টাকা দানও করেছিলেন।

২০০৮ সালে তিনি সরাসরি বিজেপি-এআইএডিএমকে জোটকে সমর্থন করেন। হিন্দুর প্রতিবেদন অনুযায়ী, রজনী বলেন, ‘‘ আমি তামিলনাড়ুতে ভোট দেব বাজপেয়ীর নেতৃত্বাধীন বিজেপি জোটকে। তবে আমি আমার ফ্যান বা জনগণকে এই জোটকে ভোট দেওয়ার জন্য জোর করছি না। তারা তাদের বুদ্ধি বিবেচনা অনুযায়ী ভোট দিন।’’ কিন্তু জোর না করলেন ‘ফ্যান’দের কাছে তাঁর কথাই শেষ কথা।

২০১৪ সালে লোকসভা ভোটের আগে নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করেন রজনী। কিন্তু বৈঠকের পর যৌথ সাংবাদিক বৈঠকে দু’জনে জানান, বৈঠক ছিল অরাজনৈতিক। পরে তিনি বলেন, ‘‘ আমি যখন অসুস্থ ছিলাম তখন তিনি (মোদী) প্রতি সপ্তাহে আমার খোঁজ নিতেন। আমাকে এক কাপ চা খেতে তিনি বাড়িতে আমায় আমন্ত্রণ করেন তাই আমি গিয়েছিলাম। সবাই জানে মোদী একজন ভালো প্রশাসক আমি ওর সাফল্য কামনা করি।’’ সরাসরি কিছু বলতে হয়নি। এতে ফ্যানেরা বুঝে গিয়েছেন কোন দিকে আছেন ‘শিবাজি দা বস’।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here