হাতিয়ার হাইকোর্টের রায়, মধ্যরাতে পরিবেশপ্রেমীদের আটক করে নির্বিচারে বৃক্ষনিধন

মুম্বই: বোম্বে হাইকোর্টের রায় আসতেই গাছ কাটার জন্য উঠেপড়ে নেমে পড়ল মহারাষ্ট্র প্রশাসন। তাড়া এতটাই যে শুক্রবার রাতে থেকেই অ্যারে কলোনিতে শুরু হয়ে গিয়েছে বৃক্ষনিধন।

গাছ কাটার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে শামিল হয়েছিলেন পরিবেশপ্রেমীরা। কিন্তু প্রশাসন তাদের কোনো তোয়াক্কা না করেই বুলডোজার চালিয়ে গাছ কেটে ফেলতে শুরু করে।

উল্লেখ্য, মুম্বইয়ে একটি মেট্রো প্রকল্পের জন্য তৈরি করা হবে কারশেড। এই কারশেড তৈরি হওয়ার কথা এই অ্যারে কলোনিতে, যার জন্য কাটা পড়ার কথা প্রায় ২৬০০ গাছের।

মহারাষ্ট্র সরকারের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বোম্বে হাইকোর্টে চারটে আবেদন জমা পড়েছিল। কিন্তু ওই চারটে আবেদনই বাতিল করে দেয় আদালত। তারা জানায়, মেট্রো প্রকল্প তৈরিতে কোনো বাধা নেই, তাতে কোনো গাছ কাটতেও হয় অসুবিধা নেই।

বোম্বে হাইকোর্টের রায়ে অসন্তুষ্ট এবং ক্ষুব্ধ পরিবেশপ্রেমীরা যখন সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার পরিকল্পনা করছিলেন, তখনই রাতারাতি গাছ কাটার জন্য নেমে পড়ে প্রশাসন।

শুক্রবার সারা রাত গাছ কাটা হয়েছে। বুলডোজারের গুঁতোয় নেতিয়ে পড়েছে একাধিক বট গাছ।

মনে করা হচ্ছে, বোম্বে হাইকোর্টের রায়ের ওপরে সুপ্রিম কোর্ট যদি কোনো স্থগিতাদেশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়, তার আগেই ‘কাজ সেরে ফেলার’ জন্য এটা করল মহারাষ্ট্র প্রশাসন।

আরও পড়ুন অবশেষে বর্ষাবিদায়ের দিনক্ষণ জানাল আবহাওয়া দফতর

এক বিক্ষোভকারী বলেন, “মাঝরাতে গাছ কাটার এত তাড়া কেন!” আরও একজনের কথায়, “বিশ্বাস হচ্ছে না। এই সরকারই মানুষকে গাছ লাগানোর জন্য আবেদন করে আবার এরাই মাঝরাতে গাছ কাটতে এসেছে।”

এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ বিরোধীপক্ষ থেকে তো এসেছেই, কিন্তু তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন শিবসেনা নেতা আদিত্য ঠাকরেও।

টুইট করে আদিত্য ঠাকরে বলেন, “এই মেট্রো প্রকল্পটি মুম্বইয়ের গর্বের প্রকল্প হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু যে ভাবে পুলিশ মোতায়েন করে অবিবেচিত ভাবে গাছ কাটা হচ্ছে, সেটা লজ্জার।”

এ দিকে পরিবেশপ্রেমীদের আরও হতাশ করে তুলেছে অমিতাভ বচ্চন, অক্ষয় কুমারদের মতো অভিনেতার অবস্থান, যাঁরা প্রকাশ্যেই এই প্রকল্পের সমর্থনে বার্তা দিয়েছেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.