parliament of india rajya sabha

নয়াদিল্লি: তৃণমূল কংগ্রেসের চিঠি-বিতর্কের জেরে উত্তাল হয়ে উঠেছিল সংসদের উচ্চকক্ষ। পরিস্থিতি না সামলাতে পেরে দু’টো পর্যন্ত অধিবেশন মুলতুবি ঘোষণা করেন অধ্যক্ষ। কিন্তু মুলতুবি উঠে যাওয়ার পর কংগ্রেস, সিপিএম,আপ-সহ প্রায় সমস্ত বিরোধী রাজনৈতিক দল বয়কট করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলে।

মুর্শিদাবাদের আইজি এবং মালদহের ডিভিশনাল কমিশনারকে চিঠি দিয়ে কেন ডাকবেন রাজ্যপাল, এই প্রশ্নতেই উত্তাল হয়ে উঠল মঙ্গলবারের রাজ্যসভা। রাজ্যপালের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব ওই চিঠি গত ৩১ জানুয়ারি সংশ্লিষ্ট আধিকারিকদের পাঠিয়েছিলেন বলে অভিযোগ তৃণমূল কংগ্রেসে। দলের দুই সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়ানের প্রতিবাদে প্রতিবাদে সমর্থন করতে দেখা যায় কংগ্রেস সাংসদরাও।

রাজ্যসভার প্রথমার্ধে তৃণমূল সাংসদ ডেরেক নোটিশ দিয়ে আলোচনার জন্য আবেদন জানান। তিনি অধ্যক্ষের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘রাজ্যপালের চিঠি সংক্রান্ত্র…,’ ব্যস তাঁর কথা শেষ না হতেই তুমুল শোরগোলের সৃষ্টি হয়। ডেরেক হাতে ধরা খাম নিয়ে বলেন, ‘আমি এখনই এই চিঠি সভায় পেশ করতে পারি।‘

কিন্তু অধ্যক্ষ ভি বেঙ্কাইয়া নাইডু কালক্ষেপ না করেই ঘোষণা করেন, তিনি দ্বিপ্রহর দুটো পর্যন্ত সভা মুলতুবি করছেন।

মুলতুবি সময়সীমা পার হওয়ার পরেও একই ইস্যুতে উত্তাল হয়ে ওঠে রাজ্যসভা।

তৃণমূলের সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদী মন্তব্য করেন, ‘রাজ্যপাল কি সুপার চিফ মিনিস্টার উনি এ ভাবে জেলা আধিকারিকদের সঙ্গে উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা করতে পারেন কি?’

এখনও পর্যন্ত যা জানা গিয়েছে, রাজ্যপালের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব প্রেরিত ওই চিঠির প্রতিলিপি তৃণমূলের হাতে রয়েছে। যে কারণে দল এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়কে রাজ্যসভায় তুলে ধরার প্রয়াস করেছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন