chandrababu naidu, mamata banerjee, narendra modi,TMC,TDP,BJP

নয়াদিল্লি:  তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত সপ্তাহে দিল্লি গিয়ে প্রাথমিক মত বিনিনয় সেরে ফেলেছেন বিজেপি-বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির সঙ্গে। আবার চলতি সপ্তাহেই তাঁর চেন্নাই যাওয়ার সূচি নির্ধারিত থাকলেও তা বাতিল করেছেন রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনের কারণে। তবে তাঁর সফর বাতিল যে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী তথা কেন্দ্রের এনডিএ-র জোটসঙ্গী চন্দ্রবাবু নাইডুর সঙ্গে সমঝোতার ক্ষেত্রে কোনো প্রভাব ফেলবে না, তা স্পষ্ট করে দিলেন স্বয়ং টিডিপি প্রধান।

অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর তিক্ত সম্পর্কের কথা সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ হয়ে চলেছে বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরেই। চন্দ্রবাবু মোদীর বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে আসছেন। প্রধানমন্ত্রী যে একটি অঙ্গরাজ্যের প্রধানের সঙ্গে সাক্ষাতেরও সময় পান না, তিনি যে নিজের ক্ষমতার অপব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোকে ধংসের দিকে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন, এমন সব গুরুতর অভিযোগ তিনি প্রকাশ্যেই করে থাকেন।

গত বুধবার নয়াদিল্লিতে চন্দ্রবাবু জানান, মোদী আদতে একজন বিশ্বাসঘাতক। তিনি অন্ধ্রপ্রদেশের সাধারণ মানুষের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন। ওই দিন তিনি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ার, জম্মু-কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লা, কংগ্রেস নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, কে সি বেণুগোপাল, সমাজবাদী পার্টির নেতা রামগোপাল যাদব এবং তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়ান এবং সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করেন।

অন্য দিকে বিজেপি-বিরোধী ফ্রন্ট গঠনে মমতার ভূমিকাকে সামনে রেখে তিনি বলেন, “এ কথা নতুন করে বলার নয় যে, মমতা একজন বড়ো মাপের নেত্রী।। তাঁর সঙ্গে আমার নিয়মিত যোগাযোগও রয়েছে। ফলে আগামী লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি-বিরোধী জোটে যে আমরা শরিক হতে চলেছি, তা প্রায় নিশ্চিত।” উল্লেখ্য, চন্দ্রবাবু বাংলায় এসে মমতার সঙ্গে সাক্ষাৎও করে গিয়েছেন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন