আগরতলা: তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সফরের আগেই ফের উত্তেজনা ছড়াল ত্রিপুরায়। রবিবার বিকেলে যুব তৃণমূল সভানেত্রী সায়নী ঘোষকে গ্রেফতার করল আগরতলা পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, খুনের চেষ্টার অভিযোগে সায়নীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে ৩০৭, ১৫৩ এবং ১২০বি ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার সূত্রপাত এ দিন সকাল থেকেই। সায়নীকে আটক করতে হোটেলে পৌঁছোয় পুলিশ। দাবি করা হয়, সায়নী ঘোষের গাড়ির ধাক্কায় একজন জখম হয়েছেন। সেখানে উপস্থিত তৃণমূল নেতৃত্ব পুলিশের কাছে নোটিশ চান। পরে সায়নীকে নিয়ে আগরতলা পূর্ব মহিলা থানায় পৌঁছান তৃণমূল নেতৃত্ব। সেখানে দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেফতার করা হয় সায়নীকে।

ঘটনায় পুলিশকে বিজেপির দলদাস বলে আক্রমণ করেছেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তিনি টুইটারে লেখেন, “অন্যায় ভাবে গ্রেফতার করল সায়নী ঘোষকে। ধিক্কার ত্রিপুরা সরকার। থানায় হামলাকারীরা গ্রেফতার হল না। গ্রেফতার হল সায়নী”।

উল্লেখযোগ্য ভাবে, সায়নীকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় আগরতলা পূর্ব মহিলা থানায় তাণ্ডব বাঁধে। বিজেপি-র লোকেরা হেলমেট পরে লাঠি নিয়ে তৃণমূল নেতা-নেত্রীদের ওপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ তৃণমূলের। ইটবৃষ্টির পাশাপাশি, ভাঙচুর চালানো হয় একাধিক গাড়িতে। আহত হন একাধিক তৃণমূল কর্মী ও নেতা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ।

তৃণমূলের অভিযোগ, চক্রান্ত করে জিজ্ঞাসাবাদের নামে থানায় ডেকে এনে মারার চেষ্টা করছে ত্রিপুরা পুলিশ।

আরও পড়তে পারেন:

ক্যানিংয়ের তৃণমূল যুব নেতা খুনে ধৃত ৯

তৃণমূলে যোগ দিলেন বিষপানকারী সেই ৫ শিক্ষিকা

সায়নী ঘোষ থানায় ঢুকতেই ইটবৃষ্টি, গাড়ি ভাঙচুর, বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগ

ত্রিপুরায় তৃণমূল নেতাদের হোটেলে হানা, বিনা নোটিশে সায়নী ঘোষকে থানায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা পুলিশের

ডিআর: কেন্দ্রীয় সরকারি অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের অ্যাকাউন্টে ৪ মাসের বকেয়া জমা হবে কবে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন