teacher brutally beats up three-year-old boy

পুনে: গুরুগ্রামে রায়ান ইন্টারন্যাশানাল স্কুলে ছাত্র খুনের ঘটনা স্কুলে নিরাপত্তাকে প্রশ্নের মুখে ফেলে দিয়েছে। কিন্তু প্রাইভেট টিউশনেও কি নিরাপদে রয়েছে আপনার সন্তান? পুনের একটি ঘটনা সেই প্রশ্নকে আবার নতুন করে তুলে দিল।

প্রতিদিনের মতো সোমবারও পুনের পিম্পেল সৌদাগর এলাকার এক বাসিন্দা তাদের তিন বছরের ছেলেকে পড়তে পাঠিয়েছিলেন একই এলাকায় বসবাসকারী প্রাইভেট টিউটর ভাগ্যশ্রী পিল্লাইয়ের কাছে। ছেলেটির বাবা-মা দু’জনের মজুরের কাজ করেন। তাঁরা যখন বাড়ি ফিরে আসেন দেখেন ছেলের মুখ চোখ বিভৎস ভাবে ফুলে গেছে। কারণ জিজ্ঞাসা করলে ছেলেটি বলে তাকে শিক্ষিকা কাঠের স্কেল দিয়ে হাতে, পিছনে এবং মাথায় মেরেছে।

তখনি তাঁরা ছেলেকে নিয়ে সংঘভি থানায় যান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করতে। ছেলেটির বাবার বয়ান অনুযায়ী, পুলিশ প্রথমে অভিযোগ না নিয়ে স্থানীয় সাসুন হাসপাতালে যেতে বলে।

সংবাদমাধ্যম ডিএনএ-কে থানার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ছেলেটি বাবা-মা ঠিক করে উঠতে পারছিলেন না তারা শিক্ষিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করবেন কি না। কারণ শিক্ষিকা পরিস্থিতি বুঝে ছেলেটি চিকিৎসার জন্য অর্থ সাহায্য করতে রাজি হয়ে গিয়েছিল।

আরও পড়ুন  : স্কুলের শিক্ষক, অশিক্ষক কর্মীদের ‘সাইকোমেট্রিক ইভ্যালুয়েশন’ করার নির্দেশ সিবিএসই-র 

ওই পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘‘ বুধবার ছেলেটির বাবা-মা শিক্ষিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করতে রাজি হন এবং তখনই অভিযোগ দায়ের করা হয়। ছেলেটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়।’’

ছেলেটির বাবা-মার অভিযোগের ভিত্তিতে ওই গৃহশিক্ষিকাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাকে আদলতে পেশ করা হলে একদিনে পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here