রায়পুর: তাঁর কাজ টিভিতে খবর পড়া। এবং তিনি ঠান্ডা মাথায়, শান্ত চিত্তে সেটাই করলেন। সহকর্মীরা বিস্মিত, বিমূঢ়। এও সম্ভব। কারণ তিনি যে খবরটা পড়লেন, সেটা তাঁর স্বামীরই মৃত্যুসংবাদ। সড়ক দুর্ঘটনায় তাঁর স্বামীর মৃত্যু। ব্রেকিং নিউজ। খবর পড়া শেষ করেই তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন।

ঘটনাটা শনিবার সকালের। ছত্তীসগঢ়ের বেসরকারি টিভি চ্যানেল আইবিসি-২৪-এ সকালের নিউজ বুলেটিন পড়া শুরু করেন সুপ্রীত কৌর। বুলেটিন পড়ার মাঝেই রিপোর্টারের ফোন আসে – ভোরে মহাসমুন্দ জেলার পিথারার কাছে এক সড়ক দুর্ঘটনায় একটি রেনল্ট ডাস্টার গাড়ির তিন জন আরোহী মারা গিয়েছেন। যদিও তাঁদের শনাক্ত করা যায়নি, সুপ্রীত বুঝে যান মৃতদের মধ্যে এক জন তাঁর স্বামী। কারণ যে সময়ে দুর্ঘটনা ঘটেছে, ঠিক সেই সময়ে সেখান দিয়ে রেনল্ট ডাস্টার গাড়িতেই তাঁর স্বামীর যাওয়ার কথা। এবং গাড়িতে যে ক’জন আরোহী থাকার কথা বলা হয়েছে, তাঁর স্বামীর সঙ্গে সে ক’জনেরই থাকার কথা।

শান্ত মনে, ধৈর্য ধরে ব্রেকিং নিউজটি পড়ে বুলেটিন শেষ করে স্টুডিও থেকে বেরিয়ে এসে সুপ্রীত আর নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি।

“বরাবরই জানি ও খুব সাহসী মেয়ে। অ্যাংকর হিসাবেও ও খুব যোগ্য। কিন্তু আজ ও যা করল, তা আমরা ভাবতেই পারি না। আমরা একেবারে বিহ্বল” – এক সহকর্মী বলেন।

২৮ বছরের সুপ্রীত ওই চ্যানেলে ৯ বছর ধরে কাজ করছেন। ভিলাইয়ের মেয়ে সুপ্রীত এক বছর আগে হরসদ কাওয়াড়েকে বিয়ে করে রায়পুরে বসবাস শুরু করেন।

সুপ্রীত দুর্ঘটনাস্থলে চলে গিয়েছেন। তাঁর সহকর্মীদের মুখে এখন শুধু তাঁরই কাহিনি।           

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here