BJP MP
ছবিতে (বাঁ দিকে) উপরে অনশূল ভার্মা এবং নীচে হরিনারায়ণ রাজভর

ওয়েবডেস্ক:  মহিলা কমিশন থাকলে কেন পুরুষ কমিশন থাকবে না? এমন প্রশ্নকে সামনে রেখেই বড়োসড়ো বিক্ষোভ-আন্দোলনে নামছেন উত্তরপ্রদেশের দুই বিজেপি সাংসদ। তাঁরা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, পৃথক পুরুষ কমিশনের দাবিতে তাঁরা আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর মহামিছিলের আয়োজন করতে চলেছেন।

উত্তরপ্রদেশেরে ঘোষির সাংসদ হরিনারায়ণ রাজভর এবং হারদৌইয়ের সাংসদ অনশূল ভার্মা জানিয়েছেন, তাঁরা খুব শীঘ্রই এই দাবিতে সরব হবেন সংসদে। যদিও কেন্দ্রীয় জাতীয় কমিশনের চেয়ারপার্সন রেখা শর্মার বক্তব্য, এ কথা ঠিক, দাবি উত্থাপনে প্রত্যেকেরই সমান অধিকার রয়েছে। কিন্তু এমনটাও মোটেই ঠিক নয় যে এ দেশে এ মুহূর্তে পৃথক পুরুষ কমিশনের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

দুই বিজেপি সাংসদের দাবি, অসংখ্য পুরুষ তাঁদের স্ত্রীর হাতে নির্যাতিত হয়ে চলেছেন। কোথাও কোথাও আইনের অপব্যবহার করে অন্যায় ভাবে সুবিধা আদায় করছেন মহিলারা।

রাজভর জানিয়েছেন, “পুরুষরাও তাঁদের স্ত্রীর হাতে নির্যাতিত হন। এ ধরনের অংসখ্য মামলা আদালতে বিচারাধীন হয়ে পড়েছে। এ দেশে পৃথক একটি কমিশন রয়েছে, যার মাধ্যমে মহিলারা নিজের পক্ষে বিচার পাওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত। কিন্তু পুরুষদের ব্যাপারে তেমনটা কিছু নেই। আমি সংসদে এই বিষয়টি উত্থাপন করব”।


আরও পড়ুন: কী ভাবে সীমা অতিক্রম করে গায়িকাকে স্পর্শ করেছিলেন বিশপ, দেখুন ভিডিওয়

অবশ্য ভার্মা গত শনিবারই সংসদের স্থায়ী কমিটির কাছে বিষয়টি তুলেছেন। তিনি নিজেও ওই কমিটির এক জন সদস্য। তিনি মনে করেন, “ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৯৮এ ধারার সংশোধনের দরকার রয়েছে। এই আইনে কোনো মহিলা তাঁর স্বামী বা শ্বশুরবাড়ির বিরু্দ্ধে অবাধে অভিযোগ দায়ের করতে পারেন। এই ৪৯৮এ ধারা পুরুষদের হয়রানি করার একটি ‘যন্ত্র’ হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে”।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন