rajya sabha

নয়াদিল্লি: পশ্চিম দিল্লির বিজেপি সাংসদ পারভেশ ভার্মা গুরুতর অভিযোগ নিয়ে এলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আম আদমি পার্টির জাতীয় আহ্বায়ক অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে। তাঁর দাবি, কেজরিওয়াল রাজ্যসভার দুই সাংসদ পদ বিক্রি করেছেন ১০০ কোটি টাকায়।

দিল্লির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সাহিব সিংহ ভার্মার ছেলে পারভেশ কেজরিওয়ালের উদ্দেশে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে বলেছেন, ‘উনি নারকো টেস্টের সামনে বসুন। উনি যদি প্রমাণ করতে পারেন যে, দু’টি সাংসদ পদ বেচতে ১০০ কোটি টাকা নেননি তা হলে আমি স্বপরিবারে ভারত ত্যাগ করব।’

নিজের যুক্তিকে শক্ত ভিতের উপর দাঁড় করাতে পারভেশ বলেছেন, ‘সুশীল গুপ্তা এবং এন ডি গুপ্তাকে যে কতিপয় ব্যক্তি চেনেন, তাঁরাও আমার কথা মানবেন। আমি হলফ করে বলতে পারি, ওনার দলের সাংসদ-বিধায়ক এবং যে জনগণ ওনাকে ভোট দিয়েছেন, তাঁরা কেউ-ই এই দুই মনোনীতকে চেনেন না।’

উল্লেখ্য, আগামী ১৬ জানুযারি রাজ্যসভা সাংসদ নির্বাচনে আপ সুশীল গুপ্তা, এন ডি গুপ্তা এবং সঞ্জয় সিংহকে প্রার্থী মনোনীত করেছে। প্রবীণ আইনজীবী এবং প্রাক্তন আপ নেতা প্রশান্ত ভূষণও ওই দুই ব্যক্তিকে আপ প্রার্থী করায় নিন্দা করেছেন। আর এক প্রাক্তন আপ নেতা যোগেন্দ্র যাদবও মন্তব্য করেছেন, এই ঘটনায় তিনি লজ্জিত। একই দিনে আপের জনপ্রিয় নেতা কুমার বিশ্বাসকেও দলীয় শাস্তির মুখে পড়তে হয়েছে ‘বেফাঁস’ মন্তব্যের জন্য। তিনি প্রকাশ্যেই মন্তব্য করেছেন, ‘সত্য কথা বলার জন্যই আমাকে শাস্তি পেতে হল।’ এর পর তাঁর লড়াই যে খোদ স্ব-দলীয় প্রধান নেতার সঙ্গেই সে কথাও তিনি জানিয়ে দিয়েছেন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন