Connect with us

দেশ

চামড়া থেকে শুরু করে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম, দাম কমল যে সমস্ত পণ্যের

ওয়েবডেস্ক: শুক্রবার বাজেট ২০১৯ প্রস্তাব পেশ করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। দেশের প্রথম পূ্র্ণ সময়ের মহিলা অর্থমন্ত্রীর বাজেট পেশ হওয়ার পরই বিভিন্ন মহল থেকে উঠে এসেছে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া।

বেঙ্গল চেম্বার্সের ট্যাক্সেশন কমিটির চেয়ারম্যান তিমিরবরণ চট্টোপাধ্যায় বলেন, আয়কর থেকে গৃহঋণের উপর যে ভাবে করছাড়ের সুযোগ দেওয়া হয়েছে, শিক্ষাখাতে বিশ্বমানের পরিকল্পনা নিয়ে এগনো হচ্ছে, তাতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। অন্য দিকে এমএসএমই সেক্টরে আলাদা ভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার। এ ভাবেই কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে, দেশের উন্নয়নও হবে। এক দিকে কর্পোরেটদের উপর বাড়তি বোঝা চাপানো অন্য দিকে সাধারণ মধ্যবিত্তের বোঝা কমিয়ে এই বাজেট সামাজিক হয়ে উঠেছে, যার প্রভাব সুদূরপ্রসারী।

এ বারের বাজেটে শিক্ষাক্ষেত্রের পরিকাঠামো উন্নয়নে সরকারের দৃষ্টিভঙ্গির প্রশংসা করেছেন জেআইএস গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সর্দার তরণজিৎ সিং। বিস্তারিত পড়ুন এখানে ক্লিক করে

এ বার দেখে নেওয়া যাক, কোন কোন পণ্যের দাম কমার কথা বলা হল এ দিনের বাজেটে।

১. প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম

২.উল এবং উলের পোশাক

৩. কিছু চিকিৎসা সরঞ্জাম

৪. মোবাইল ক্যামেরা-সহ অন্যান্য যন্ত্রাংশ যেমন, চার্জার, অ্যাডাপ্টার, লিথিয়াম আয়ন সেল

৫. কম্প্যাক্ট ক্যামেরা মডিউল, সেট টপ বক্স

৬. বৈদ্যুতিক গাড়ির অংশ

৭. পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় সকল পণ্য

৮. সব কোনো ধরনের চামড়া, ট্যান্‌ড অথবা আনট্যান্‌ড

আরও পড়ুন: বাজেট ২০১৯: দাম বাড়ল এই পণ্যগুলির

দেশ

সচিন পাইলট থাকুক কংগ্রেসেই, চাইছেন রাহুল গান্ধী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার সময়ে যে তৎপরতা দেখা যায়নি, সেটাই দেখা যাচ্ছে সচিন পাইলটের (Sachin Pilot) ক্ষেত্রে। খোদ রাহুল গান্ধীও (Rahul Gandhi) চাইছেন পাইলট যাতে কংগ্রেসেই (Congress) থেকে যান। সে কারণে অশোক গহলৌত শিবিরের কাছেও বিশেষ বার্তা পাঠিয়েছে কংগ্রেসের হাইকম্যান্ড।

বুধবার সকালে পাইলট জানিয়ে দেন, তিনি বিজেপিতে যাচ্ছেন না। এমনকি নিজেকে কংগ্রেসের সদস্য বলতেও কোনো রকম রাখঢাক করেননি তিনি। সেটাই বরফ গলার প্রথম ইঙ্গিত হিসেবে ধরে নেওয়া হয়েছিল।

কংগ্রেস সূত্রে খবর, রাহুল গান্ধীর সঙ্গে পাইলটের সরাসরি কথা হয়নি। তবে দূতের মাধ্যমে নিজের বার্তা রাজস্থানের সদ্যপ্রাক্তন উপমুখ্যমন্ত্রীর কাছে পাঠিয়ে দিয়েছেন তিনি। এই দূতের কাজটি করেছেন প্রিয়ঙ্কা গান্ধী (Priyanka Gandhi)।

গত কয়েক দিনে অন্তত তিন বার পাইলটের সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে প্রিয়ঙ্কার।

সচিনকে বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি অশোক গহলৌত (Ashok Gehlot) শিবিরকেও বার্তা দিয়েছে হাইকম্যান্ড। গত কয়েক দিন ধরে পাইলটের বিরুদ্ধে ক্রমাগত আক্রমণ করে চলেছেন গহলৌত। বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে তিনি বিধায়ক কেনাবেচায় মেতেছেন, তেমন অভিযোগও করেছেন গহলৌত।

গহলৌত তাঁর সুর যাতে নরম করেন, হাইকম্যান্ড সেই বার্তাই পাঠিয়েছে তাঁর কাছে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে রাজস্থানের গহলৌত সরকার টিকে যাবে বলেই মনে করা হচ্ছে। কারণ পাইলট শিবিরের কাছে বেশি বিধায়ক নেই। গহলৌত শিবিরের দাবি, তাঁর দিকে অন্তত ১০৬ জন বিধায়ক রয়েছে।

এই পরিস্থিতি দেখেই আস্থাভোটের দাবি থেকে আপাতত সরে এসেছে বিজেপিও। আগামী দিনে নিজেদের মধ্যে বৈঠক করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে গেরুয়া শিবির।

Continue Reading

দেশ

৩২ হাজারেরও বেশি আক্রান্তের দিন ভারতে আরও এক নজির, সুস্থতা ছাড়াল ছ’লক্ষের গণ্ডি

১০ রাজ্যে মোট আক্রান্তের ৭৫ শতাংশ

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এই প্রথম, ভারতে করোনায় আক্রান্ত হলেন ৩২ হাজারেরও বেশি। আবার একই দিনে সুস্থতা ছাড়াল ছয় লক্ষের গণ্ডি। যদিও মৃত্যু হয়েছে ছ’শোর কিছু বেশি মানুষের। ফলে মৃত্যুহারের নিম্নগামী যাত্রা অব্যাহত হয়েছে ভারতে।

করোনামুক্ত ছয় লক্ষ

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) বৃহস্পতিবারের হিসেব বলছে বর্তমানে ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ লক্ষ ৬৮ হাজার ৮৭৬। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ৩১ হাজার ১৪৬ জন। সুস্থ হয়েছেন ৬ লক্ষ ১২ হাজার ৮১৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৪,৯১৫ জনের।

অর্থাৎ, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩২,৬৯৫ জন, সুস্থ হয়েছেন ২০,৭৮৩ জন। এই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ৬০৬ জনের। বর্তমানে দেশে মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.৫৭ শতাংশে।

মার্চে ৩১ শতাংশ থেকে বর্তমানে ৩.৪৯ শতাংশে রোগী বৃদ্ধি

আক্রান্তের সংখ্যায় প্রায় রোজই রেকর্ড তৈরি হলেও এর মধ্যে কিছু আশার আলোও দেখতে পাচ্ছেন স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা। মার্চের শেষে দেশে রোগীবৃদ্ধির হার ছিল ৩১.২৮ শতাংশ। বৃহস্পতিবার সেটা কমে এসেছে ৩.৪৯ শতাংশে।

মে’র মাঝামাঝি দেশে সুস্থতার হার ছিল ২৬.৫৯ শতাংশ। সেটা এখন বেড়ে ৬৩.২৫ শতাংশ হয়েছে। দফতরের কর্তারা জানান, করোনাভাইরাস গোটা দেশে সমান ভাবে ছড়ায়নি, বিশেষ বিশেষ পকেটে বেশি মাত্রায় ছড়িয়েছে। সে কারণেই দেশে গোষ্ঠী সংক্রমণ হয়নি বলে সাফ কথা কেন্দ্রের।

১০ রাজ্যে মোট আক্রান্তের ৭৫ শতাংশ

স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানাচ্ছে ভারতে বর্তমানে যত করোনারোগী রয়েছেন, তার ৭৫ শতাংশই দশটি রাজ্যে সীমাবদ্ধ। সেগুলি হল, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, দিল্লি, কর্নাটক, গুজরাত, তেলঙ্গানা, উত্তরপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ আর রাজস্থান।

এর মধ্যে ৫০ শতাংশই মহারাষ্ট্র আর তামিলনাড়ুতে। বাকি ২৫ শতাংশ রয়েছে বাকি রাজ্যে।

কড়া নজরদারির কারণে কেরল, হিমাচল প্রদেশ আর উত্তরাখণ্ডে এই ভাইরাসকে অনেকটাই বাগে আনা গিয়েছে বলে মত স্বাস্থ্য মন্ত্রকের।

Continue Reading

দেশ

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৩২৬৯৫, সুস্থ ২০৭৮৩

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যায় কোনো রকম লাগাম না টানা গেলেও লকডাউনের কড়াকড়ি অনেকটাই শিথিল করা হয়েছে। শুরু হয়েছে আনলক পর্ব। মানুষ রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছেন। স্বাভাবিক ভাবেই এখন আক্রান্তের সংখ্যা আগের থেকে অনেকটাই বাড়বে। মঙ্গলবার, তথা ১ জুলাই থেকে নতুন করে কোভিড আপডেট শুরু করল খবরঅনলাইন। ৩০ জুন পর্যন্ত যাবতীয় আপডেট পড়ার জন্য ক্লিক করুন এখানে

==================================================================

১৬ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) বৃহস্পতিবার হিসেব বলছে বর্তমানে ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ লক্ষ ৬৮ হাজার ৮৭৬ । এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ৩১ হাজার ১৪৬ জন। সুস্থ হয়েছেন ৬ লক্ষ ১২ হাজার ৮১৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৪,৯১৫ জনের।

অর্থাৎ, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩২,৬৯৫ জন, সুস্থ হয়েছেন ২০,৭৮৩ জন। এই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ৬০৬ জনের। বর্তমানে দেশে মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.৫৭ শতাংশে।

১৫ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) প্রকাশিত তথ্যে দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ লক্ষ ৩৬ হাজার ১৮১ । এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৪০। সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৯২ হাজার ৩২ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৪৩০৯ জনের।

অর্থাৎ, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৯,৪২৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ২০,৫৭২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৮২ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬৩.২৩ শতাংশে। মৃত্যুর হার আরও কিছুটা কমে ২.৫৯ শতাংশে নেমে এসেছে।

১৪ জুলাই, সকাল দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের প্রকাশিত তথ্য দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯ লক্ষ ৬ হাজার ৭৫২। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ১১ হাজার ৫৬৫। সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৭১ হাজার ৪৬০ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৩৭২৭ জনের।

অর্থাৎ, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৮,৪৯৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৭,৯৯০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৪৯ জনের। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার রয়েছে ৬৩.০২ শতাংশে। মৃত্যুর হার আরও কিছুটা কমে ২.৬২ শতাংশে নেমে এসেছে।

১৩ জুলাই, সকাল ১০টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) সোমবারের হিসেব বলছে, এই মুহূর্তে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ লক্ষ ৭৮ হাজার ২৫২। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩ লক্ষ ১ হাজার ৬০৯। সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৫৩ হাজার ৪৭০ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৩,১৭৪ জনের।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৮,৭০১ জন। রেকর্ড সংক্রমণের পাশাপাশি সুস্থ হয়েছেন ১৮,৮৪৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫০০ জনের।

১২ জুলাই, সকাল ১০টা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ লক্ষ ৪৯ হাজার ৫৫৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৯২ হাজার ২৫৮। সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৩৪ হাজার ৬২১। মৃত্যু হয়েছে ২২ হাজার ৬৭৪ জনের।

এ দিন স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, শনিবার সকাল ৮টার পর থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন ২৮ হাজার ৬৩৭ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৯ হাজার ২৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৫১ জনের।

১১ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য বলছে ভারতে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ লক্ষ ২০ হাজার ৯১৬। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৮৩ হাজার ৪০৭ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫ লক্ষ ১৫ হাজার ৩৮৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ২২,১২৩ জনের।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২৭,১১৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। সুস্থ হয়েছেন ১৯,৮৭৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫১৪ জনের। সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬২.৭৮ শতাংশ।

১০ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) যে রিপোর্ট দিয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭ লক্ষ ৯৩ হাজার ৮০২। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৭৬ হাজার ৬৮৫। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লক্ষ ৯৫ হাজার ৫১৩। মারা গিয়েছেন ২১,৬০৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৬,৫০৬ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৯,১৩৪ জন। মারা গিয়েছেন ৪৭৫ জন। দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৬২.৪২ শতাংশ হয়েছে। মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে ২.৭২ শতাংশে এসেছে।

৯ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭ লক্ষ ৬৭ হাজার ২৯৬। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৬৯ হাজার ৭৮৯। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লক্ষ ৭৬ হাজার ৩৭৮। মারা গিয়েছেন ২১,১২৯ জন।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৪,৮৭৯ জন। এই রেকর্ডের পাশাপাশি সুস্থতার সংখ্যাও বেড়েছে। এই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ১৯,৫৪৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৪৭ জনের। সুস্থতার হার মঙ্গলবারের থেকে কিছুটা বেড়ে ৬২.০৮ শতাংশ হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী বেড়েছে ৩.৩৫ শতাংশ।

৮ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭ লক্ষ ৪২ হাজার ৪১৭। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৬৪ হাজার ৯৪৪। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লক্ষ ৫৬ হাজার ৮৩১। মারা গিয়েছেন ২০,৬৪২ জন।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২২,৭৫২ জন গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৬,৮৮৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৮২ জনের। সুস্থতার হার মঙ্গলবারের থেকে কিছুটা বেড়ে সাড়ে ৬১ শতাংশ হয়েছে।

৭ জুলাই, সকাল সাড়ে দশটা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী মঙ্গলবার দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭ লক্ষ ১৯ হাজার ৬৬৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৫৯ হাজার ৫৫৭। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লক্ষ ৩৯ হাজার ৯৪৮। মারা গিয়েছেন ২০,১৬০।

অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২২,২৫২ জন। ৩ জুলাইয়ের পর নতুন আক্রান্তের সংখ্যায় এতটা পতন দেখা গেল। এর ফলে রোগী বৃদ্ধির হার এখন কমে এসেছে মাত্র ৩.১৯ শতাংশে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৫,৫১৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৬৬ জনের। সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৬১.১৩ শতাংশ হয়েছে। মৃত্যুহার কমে এসেছে ২.৮০ শতাংশে।

৬ জুলাই, সকাল সাড়ে দশটা

সোমবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) যে তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে ভারতে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৯৭ হাজার ৪১৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৫৩ হাজার ২৮৭। সুস্থ হয়েছেন ৪ লক্ষ ২৪ হাজার ৪৩৩। মৃত্যু হয়েছে ১৯,৬৯৪ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪,২৪৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৫,৩৫০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪২৫ জনের। রবিবার মৃত্যু হয়েছিল ৬০৮ জনের।

৫ জুলাই, সকাল দশটা

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৭৩ হাজার ১৬৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৪৪ হাজার ৮১৪। সুস্থ হয়েছেন ৪ লক্ষ ৯ হাজার ৮৩। মৃত্যু হয়েছে ১৯২৬৮ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪,৮৫০ জন। সুস্থ হয়েছেন ৯৩৮১ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬১৩ জনের। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৭৭ শতাংশ।

৪ জুলাই, সকাল দশটা

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৪৮ হাজার ৩১৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৩৫ হাজার ৪৩৩। সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ৯৪ হাজার ২২৭। মৃত্যু হয়েছেন ১৮,৬৫৫ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২২,৭১১ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৪,৩৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৪২। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৮০ শতাংশ।

৩ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) রিপোর্ট অনুযায়ী ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ২৫ হাজার ৫৪৪। এর মধ্যে সুস্থতার হারই পৌঁছে গিয়েছে ৬০.৭৯ শতাংশ মানুষ। অর্থাৎ ৩ লক্ষ ৭৯ হাজার ৮৯২ মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

দেশে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২ লক্ষ ২৭ হাজার ৪৩৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৮,২১৩ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২০,৯০৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ২০,০৩২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩৭৯ জনের। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় রোগী বেড়েছে মাত্র ৮৯২।

২ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) রিপোর্টে দেখা গিয়েছে যে এই মুহূর্তে ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৪ হাজার ৬৪১। যদিও এর মধ্যে ৫৯.৫১ শতাংশ মানুষই সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৫৯ হাজার ৮৬০। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২ লক্ষ ২৬ হাজার ৯৪৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৭,৮৩৪ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯,১৪৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ১১,৯১২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৩৪ জনের। রোগীবৃদ্ধির হার কিছুটা কমে এখন রয়েছে ৩.২৭ শতাংশ।

১ জুলাই, সকাল সাড়ে ন’টা

বুধবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক (Ministry of Health and Family Welfare) যে পরিসংখ্যান দিয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে এই মুহূর্তে ভারতে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লক্ষ ৮৫ হাজার ৪৯৩। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ২০ হাজার ১১৪। সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ৪৭ হাজার ৯৪৮। মৃত্যু হয়েছে ১৭,৪০০ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮,৬৫৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৩,১২৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫০৭ জনের।

Continue Reading
Advertisement
দেশ11 mins ago

সচিন পাইলট থাকুক কংগ্রেসেই, চাইছেন রাহুল গান্ধী

দেশ37 mins ago

৩২ হাজারেরও বেশি আক্রান্তের দিন ভারতে আরও এক নজির, সুস্থতা ছাড়াল ছ’লক্ষের গণ্ডি

দেশ41 mins ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৩২৬৯৫, সুস্থ ২০৭৮৩

দেশ1 hour ago

বুলডোজারে নষ্ট করা হচ্ছে ফসল, এই আঘাতে বিষ খেলেন দলিত দম্পতি

বিজ্ঞান8 hours ago

সূর্যাস্তের পর অন্তত ২০ মিনিট দেখুন উত্তর-পশ্চিম আকাশে ধূমকেতু ‘নিওওয়াইজ’, চলবে মাসভর

বাংলাদেশ11 hours ago

বাবা-মায়ের পাশে চিরনিদ্রায় প্লে-ব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোর

রাজ্য12 hours ago

প্রকাশিত হয়েছে মাধ্যমিকের ফলাফল, ভরতি কবে এবং কী ভাবে?

প্রযুক্তি13 hours ago

রিলায়েন্সের নতুন ‘জিও গ্লাস’, চশমাটি কী কাজে লাগবে?

কেনাকাটা

laptop laptop
কেনাকাটা15 hours ago

ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ২৫ হাজার টাকার মধ্যে এই ৫টি ল্যাপটপ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : কোভিভ ১৯ অতিমারির প্রকোপে বিশ্ব জুড়ে চলছে লকডাউন ও ওয়ার্ক ফ্রম হোম। অনেকেই অফিস থেকে ল্যাপটপ পেয়েছেন।...

কেনাকাটা4 days ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা7 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা1 week ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

নজরে