রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে ৯টি অজানা তথ্য জেনে নিন

0
rntagore
আইনস্টাইন-রবীন্দ্রনাথ

ওয়েবডেস্ক: দেশের মধ্যে সাহিত্যে প্রথম নোবেল জয়ী মনীষী হলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। ১৫৮তম জন্ম বার্ষিকীতে আসুন জেনে নেওয়া যাক তাঁর সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য।

১) রবীন্দ্রনাথের জন্ম দিনকে ঘিরে মতানৈক্য। বাংলা ক্যালেন্ডার অনুযায়ী তাঁর জন্ম দিন ২৫ বৈশাখ। সেই হিসাবে পশ্চিমবঙ্গে প্রতি বছর গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুযায়ী হয় ৮ অথবা ৯ মে পালন করা হয় জন্মদিন। কিন্তু দেশের বাকি অংশে রবীন্দ্রনাথের জন্মদিন পালন করা হয় গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ৭ মে।

২) প্রকাশক উইলিয়ম রথেনস্টেইন ছিলেন ঠাকুর পরিবারের বন্ধু। তিনি ১৯১২ সালে লন্ডন ভ্রমণের সময় ‘গীতাঞ্জলি’র অনুবাদ রথেনটেইনকে দিয়েছিলেন। রথেনস্টেইন রবীন্দ্রনাথের কবিতায় মুগ্ধ হন। তিনি এজরা পাউন্ড, ডব্লিউবি ইয়েটসের সঙ্গে রবীন্দ্রনাথের পরিচয় করিয়ে দেন।

৩) ১৯১৩ সালে নোবেল পাওয়ার পর তিনিই হয়েছিলেন প্রথম অ-ইউরোপীয় সাহিত্যিক, যিনি এই পুরস্কার জিতেছিলেন। ‘গীতাঞ্জলি’র পূর্ণাঙ্গ সংস্কার বেরনোর পর তাঁকে পুরস্কৃত করা হয়।

৪) তিনিই একমাত্র কবি যিনি দুই দেশের জন্য জাতীয় সঙ্গীত লিখেছেন। ‘জনগনমন’ ভারতের জাতীয় সঙ্গীত। ‘আমার সোনার বাংলা’ বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত। অনেকে আবার দাবি করেন শ্রীলঙ্কার জাতীয় সঙ্গীতও রবীন্দ্রনাথ রচিত একটি বাংলা গানের ওপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছিল।

আরও পড়ুন – রবীন্দ্রনাথের গল্প নিয়ে তৈরি ধারাবাহিক এখন ইংরাজি আর তামিল ভাষাতেও

৫) ২০০৪ সালে রবীন্দ্রনাথের নোবেল পদকটি শান্তিনিকেতনের উত্তরায়ণ থেকে চুরি হয়ে যায়।

৬) তিনি ৬০ বছর বয়সে চিত্রাঙ্কন শুরু করেন। আবার সেই সব কাজের বহু সফল প্রদর্শনীয়ও হয়।

৭) তিনি প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা বিশেষ পছন্দ করতেন না। তিনি তাঁর দাদা হেমেন্দ্রনাথের কাছ থেকে শিক্ষাগ্রহণ করেছেন। তিনি কোনো দিন কলেজে যাননি।

৮) রবীন্দ্রনাথ আর মহাত্মা গান্ধীর মধ্যে সুসম্পর্ক ছিল। এমনকী গান্ধীজিকে জাতির জনক উপাধি রবীন্দ্রনাথই দিয়ে ছিলেন।

৯) ১৯৩০ থেকে ১৯৩১ সালের মধ্যে আইনস্টাইনের সঙ্গে রবীন্দ্রনাথ চার বার দেখা করেন। একে অপরের আবিষ্কার আর সৃষ্টির প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলেন তাঁরা।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.