কী হচ্ছে উত্তরপ্রদেশে! উন্নাওয়ের নির্যাতিতাকে ফের গণধর্ষণ

0
Child Rape
প্রতীকী ছবি

উন্নাও: আবার সেই উন্নাও। এ বার নির্যাতিতাকে দ্বিতীয়বার গণধর্ষণের অভিযোগ। প্রথম বারের ধর্ষণের মামলা চালিয়ে যাওয়ার জন্য যাঁদের থেকে ওই নির্যাতিতা সাহায্য নিয়েছিলেন, এ বার তাঁদের হাতেই গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ।

তিন বছর আগের একটি গণধর্ষণ মামলায় আইনি লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন উন্নাওয়ের এক বধূ। মামলা চালিয়ে যাওয়ার সময়েই আলাপ হয়েছিল অভিযুক্তদের সঙ্গে। দ্রুত বিচার পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে, তারা ভাব জমিয়েছিল ওই নির্যাতিতার সঙ্গে।

তাদের উপর নির্ভরও করেছিলেন। সেই বিশ্বাসের অমর্যাদা করে, পাঁচ জনে মিলে তাঁকে আবারও ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ।

পুলিশ সূত্রে খবর, ২০১৭ সালে প্রথমবার গণধর্ষণের শিকার হয়েছিলেন ওই নির্যাতিতা। ঘটনার প্রায় তিন বছর পরেও সেই মামলা আদালতে ঝুলে রয়েছে। অভিযুক্তদের মধ্যে তাঁর স্বামীও রয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে নির্যাতিতার বিয়ে হয়। বিয়ের পাঁচ বছর পর, এক রাতে মহিলার স্বামী ও তার দুই বন্ধু মিলে তাঁকে ধর্ষণ করে। এর পর থেকে নির্যাতিতার স্বামী জেলবন্দি।

বিচার বিলম্বিত হওয়ায়, অধৈর্য হয়ে পড়েছিলেন নির্যাতিতা। এমতাবস্থায় কয়েক জনের সঙ্গে তাঁর আলাপ হয়। নির্যাতিতা ওই বধূর কথায়, “এই পাঁচ অভিযুক্তের সঙ্গে ২০১৮ সালেই আমার আলাপ হয়েছিল। ২০ দিনের মধ্যে বিচার পাইয়ে দেওয়ার কথা বলেছিল তারা। তাদের কথায় ভরসা করে, ঠকেছি।”

এফআইআরে তিনি জানান, শুধু গণধর্ষণ নয়, তাঁর কাছে থাকা ৬ হাজার টাকাও অভিযুক্তরা কেড়ে নেয়। একটি সাদা কাগজে তাঁর টিপসইও তারা নিয়েছিল। এর পর শুরু হয় নিয়মিত ব্ল্যাকমেল।

আরও পড়ুন ২ মার্চ খুলছে এসবিআই কার্ড আইপিও, দাম ৭৫০-৭৫৫ টাকার মধ্যেই

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তদের নাম অনুপ সিং, দিলীপ যাদব, সতীশ, নভরজ সিং ও বিশ্বনারায়ণ সিং। এই ঘটনায় উত্তরপ্রদেশের বাঙ্গারমাও থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অভিযুক্তদের একজনকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বাকি ৪ জন ফেরার। তাদের খোঁজ চলছে।

এমনিতেই একের পর এক ধর্ষণের ঘটনার ফলে উন্নাওকে দেশের ‘ধর্ষণ রাজধানী’ বলেও আখ্যা দেওয়া হচ্ছে। এরই মধ্যে আরও একটা ঘটনা প্রমাণ করে দিল উত্তরপ্রদেশের এই অঞ্চলে পুলিশে কোনো ভয় কার্যত উধাও হয়ে গিয়েছে অভিযুক্তদের মধ্যে।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.