Connect with us

দেশ

ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে বাড়ি তৈরি করে তাক লাগিয়ে দিলেন দম্পতি

ওয়েবডেস্ক: প্লাস্টিককে কী ভাবে গঠনমূলক পদ্ধতিতে ব্যবহার করা যায় সে সম্পর্কে একটি বার্তা দেওয়ার জন্য উত্তর প্রদেশের এক দম্পতি উত্তরাখণ্ডের নৈনিতাল জেলার হার্টোলা গ্রামে প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে তৈরি আস্ত একটি বাড়ি বানিয়ে ফেললেন।

চারটি ঘরের ওই বাড়িটিকে হোম-স্টে হিসাবে ভাড়া দিতে চান মালিকেরা। ওই বাড়ি তৈরি করতে ২৬ হাজারেরও বেশি বোতল ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানান তাঁরা।

এই উদ্যোগের মাধ্যমে মেরঠের এক স্কুল শিক্ষক দীপ্তি শর্মা হিমালয়কে ডাম্পিং গ্রাউন্ড না করে পাহাড়ে আরও ভাল উপায়ে প্লাস্টিক ব্যবহারের বার্তা দিতে চেয়েছেন। জানিয়েছেন, স্বামীকে সঙ্গে নিয়েই বাড়িটি তৈরি করেছেন তিনি।

সংবাদ মাধ্যমের কাছে দীপ্তি বলেন, “আমরা পাহাড়ে প্রচুর ভ্রমণ করি। যে কোনো জায়গায় গেলেই দেখি প্লাস্টিকের বর্জ্যকে পুনর্ব্যবহার বা যথাযথ নিষ্পত্তি না করেই পাহাড়কে আবর্জনার স্তূপে পরিণত করা হচ্ছে। পাহাড়গুলিতে এই দৃশ্য দেখে আমরা হতাশ হয়েছি। প্রকৃত অর্থে এই বিষয়টা আমাদের ভাবিয়ে তুলেছে, আঘাত করেছে। সেখান থেকেই আমরা প্লাস্টিক ব্যবহার করে কিছু করতে চাইছিলাম। আমরা বিশ্বাস করি, হয় ভ্রমণার্থীদের ওই প্লাস্টিক পুনর্ব্যবহার করা উচিত বা ওই প্লাস্টিকের বর্জ্য ফিরিয়ে নেওয়া উচিত, কিন্তু প্লাস্টিক দিয়ে কোনো ভাবেই পাহাড়ের ক্ষতি করা ঠিক নয়”।

উদ্যোগটি বাস্তবায়নের পরে এই দম্পতি কী ভাবে বাড়িঘর, ছোটো পাবলিক টয়লেট এবং দোকান তৈরিতে প্লাস্টিক ব্যবহার করা যায়, সে সম্পর্কে বার্তা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগের পরিকল্পনা নিয়েছেন।

বাড়িটির সহ-মালিক অভিষেক আনন্দ বলেন, “আমরা বাড়িটিকে হোম-স্টে হিসাবে ভাড়া দেওয়ার জন্য রেজিস্ট্রির আবেদন জানিয়েছি। এটা হয়ে গেলে আমরা সরকারি আধিকারিকদের সঙ্গে বিশদ ভাবে এ ব্যাপারে কথা বলব”।

তিনি বলেন, “আমরা দেওয়াল তৈরি করতে প্লাস্টিকের বোতল ব্যবহার করেছি। এক-একটা স্তরে ১০০টি করে বোতল বাঁধা হয়েছে। বোতলগুলিকে নির্দিষ্ট স্থানে অক্ষত ভাবে রাখার জন্য তারের জাল দিয়ে সেগুলিকে বেঁধে রাখা হয়েছে। তবে প্লাস্টির ছাড়াও মেঝে এবং সিঁড়ির জন্য আমরা পুরনো টায়ার ব্যবহার করেছি। বাড়ির ল্যাম্পের জন্য ব্যবহৃত হয়েছে হুইস্কির বোতল।”।

জানানো হয়েছে, বাড়িটিতে আট জন মানুষ থাকতে পারেন। ১০x১১ ফুটের চারটি ঘর রয়েছে ওই বাড়িটিতে।

আনন্দ বলেন, “আমরা ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে এই বাড়ি তৈরির কাজ শুরু করেছিলাম। পুরো কাজ সম্পূর্ণ করতে করতে আমাদের প্রায় দেড় বছর সময় লেগেছে। ২০১৬ সালে ল্যানসডাউন ভ্রমণের সময়, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে, নোয়াডা বা গাজিয়াবাদে নয়, আমরা পাহাড়ে একটা বাড়ি রাখতে চাই। সেই পরিকল্পনা নিয়েই আমরা এঅ জমিটি ২০১৭ সালে কিনেছিলাম। বাড়িটি তৈরির জন্য শ্রম ও কাঁচামাল-সহ প্রায় দেড় লক্ষ টাকা ব্যয় হয়েছে”।

তিনি আরও উল্লেখ করেছেন যে বর্তমানে তাঁরা এই বাড়িতে বৃষ্টির জল সংগ্রহের জন্য একটি সিস্টেম তৈরি করছেন এবং একটি ১০ হাজার লিটারের ট্যাঙ্ক তৈরি করতে চাযন, যেখানে বৃষ্টির জল ধরে রাখার পর গ্রামের সমস্ত মানুষই তা ব্যবহার করতে পারবেন।

বাড়িটির উপকারের কথা বলতে গিয়ে দীপ্তি বলেন, “আমরা শুধুমাত্র প্লাস্টিকের পুনর্ব্যবহার করতে পেরেছি তা নয়, প্লাস্টিক ঠান্ডার ভালো নিরোধক হিসাবেও কাজ করে। যা এই জায়গায় বেশ কার্যকর হতে পারে”।

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দেশ

করোনায় মৃত্যু ছেলের, আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন দম্পতি!

কোয়রান্টিন সেন্টারে প্রথম সারির কর্মী ছিলেন ২৭ বছরের যুবক। সম্ভবত সেখান থেকেই সংক্রামিত।

ওয়েবডেস্ক: ২৭ বছরের ছেলে একটি করোনাভাইরাস (Coronavirus) কোয়রান্টিন সেন্টারে প্রথম সারির কর্মী ছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, সম্ভবত সেখান থেকেই করোনা সংক্রামিত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়। এর পর ছেলে হারানোর কষ্ট সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করলেন বৃদ্ধ বাবা-মা।

ঘটনাটি ওড়িশার গঞ্জাম (Ganjam, Odisha) জেলার। আত্মহত্যাকারী দম্পতির নাম রাজকিশোর সতপথী এবং তাঁর স্ত্রী সুলোচনা। গঞ্জাম জেলার কবিসূর্যনগর থানার অন্তর্গত নারায়ণপুর সাসন গ্রামের বাসিন্দা তাঁরা।

ঘটনায় প্রকাশ, তাঁদের ছেলে সীমাঞ্চল স্থানীয় এ পঙ্কলাবাড়ি গ্রামের একটি স্কুলে পড়াশোনা করেন। গত মে মাস থেকে কোয়রান্টিন সেন্টারে প্রথমসারির কর্মী হিসাবে কাজ করছিলেন। সেখানেই সংক্রামিত হন।

তাঁর জ্বর দেখা দেওয়ার পর স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করা হয়। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করলে একটি বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় গত ১ জুলাই। ওই দিনই তাঁর নমুনা পরীক্ষায় কোভিড-১৯ (Covid-19) পজিটিভ রিপোর্ট ধরা পড়ে।

পর দিন সকালেই মৃত্যু হয় সীমাঞ্চলের। ছেলের এই আকস্মিক মৃত্যুর আঘাত সহ্য করতে পারেননি দম্পতি। গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন দম্পতি।

পুলিশ এসে বাড়ির কাছে একটি গাছ থেকে রাজকিশোরের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে। নিজের ঘরের ভিতরেই পাওয়া যায় তাঁর স্ত্রীর ঝুলন্ত দেহ। পুলিশ দেহ দু’টি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস লকডাউনের জেরে সংকটে পড়ে একাধিক আত্মহত্যার ঘটনা দেখা গিয়েছে দেশে। এমনকী, করোনা নুমনা পরীক্ষার রিপোর্ট আসার আগেই হাসপাতালের আট তলার ব্যালকনি থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন দিল্লির এক যুবক। কিন্তু ছেলেকে করোনায় হারিয়ে এই প্রথম কোনো দম্পতি একই সঙ্গে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন!

Continue Reading

দেশ

৩ লক্ষ টাকায় সোনার মাস্ক, করোনা থেকে মুক্তি মিলবে কি না জানেন না

খবরঅনলাইন ডেস্ক: মানুষের আচরণ বড়ো বিচিত্র। এক দিকে যখন লকডাউনের (Lockdown) কারণে অসংখ্য মানুষ কাজ হারিয়েছেন, তখনই ৩ লক্ষ টাকার সোনার মাস্ক পরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন এক ব্যক্তি। গোটা দেশে যাই ঘটে যাক, তাঁর যেন কোনো হেলদোল নেই।

৫ ভরি সোনা দিয়ে বানানো এই মাস্ক। যার দাম ২ লক্ষ ৮৯ হাজার টাকা! সোনার মাস্ক পরে পুনের পিম্পরিতে এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন শঙ্কর কুরাদে নামে এক ব্যক্তি। তিনি এই মাস্ক পরে ঘুরে বেড়ান।

তাঁর গলায় আর হাতে রয়েছে সোনার গয়না। সোনার এই মাস্কে বেশ কিছু ছিদ্র রয়েছে যার ফলে তাঁর নিঃশ্বাসের কোনো অসুবিধা হয় না। যদিও এটা করোনাভাইরাসের (Coronavirus) বিরুদ্ধে কতটা কার্যকর, তা নিয়ে নিশ্চিন্ত নন কুরাদে।

তবে তাঁর এই কাজ দেখে অবাক সবাই। দেশ এখন বড়ো সঙ্কটের মুখে দাঁড়িয়ে। তখন এই ব্যক্তির কাজকর্ম নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন সাধারণ মানুষ।

Continue Reading

দেশ

পাঁচ রাজ্যে নতুন করে করোনা-আক্রান্ত ১৬,৭৯৯ বাকি দেশে ৫,৯৭২

খবরঅনলাইন ডেস্ক: যত দিন যাচ্ছে ভারতে করোনা-পরিস্থিতির ছবিতে একটি বিভাজন স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এক একটি রাজ্যে করোনাভাইরাসের (Coronavirus) এক এক রকম ছবি দেখা যাচ্ছে।

এই যেমন গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২২,৭৭১ জন। এর মধ্যে ১৬,৭৯৯ জনই পাঁচ রাজ্যের। অর্থাৎ, ভারতের বাকি অংশে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মাত্র ৫,৯৭২ জন।

শনিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৪৮ হাজার ৩১৫। এর মধ্যে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২ লক্ষ ৩৫ হাজার ৪৩৩। সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ৯৪ হাজার ২২৭। মৃত্যু হয়েছেন ১৮,৬৫৫ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সুস্থ হয়েছেন ১৪,৩৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৪২। দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৮০ শতাংশ।

যে পাঁচ রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা সব থেকে বেশি তারা হল, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, দিল্লি, তেলঙ্গানা আর কর্নাটক।

মহারাষ্ট্রে সুস্থ হয়েছেন এক লক্ষের বেশি

গত ২৪ ঘণ্টায় সব থেকে বেশি আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে মহারাষ্ট্র থেকেই (৬৩৬৪)। কিন্তু সে রাজ্যে সুস্থতার হারও আশাব্যঞ্জক। এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা দু’লক্ষের গণ্ডি না পেরোলেই ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন এক লক্ষ চার হাজার ৬৮৭। সক্রিয় রোগী এখন রয়েছেন ৭৯,৯২৭।

এ রাজ্যে করোনায় মারা গিয়েছেন ৮৩৭৬ জন। ফলে মহারাষ্ট্রে মৃত্যুহার এখন রয়েছে ৪.৩৪ শতাংশ।

তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত এক লক্ষ

মহারাষ্ট্রের পর দ্বিতীয় রাজ্য হিসেবে আক্রান্তের সংখ্যা এক লক্ষের গণ্ডি পেরোল তামিলনাড়ুতে। গত ২৪ ঘণ্টায় এ রাজ্যে নতুন করে ৪৩২৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে তামিলনাড়ুতে এখন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে এক লক্ষ ২৭২১ জন।

তবে তামিলনাড়ুতে রোজ ৩০ হাজারের বেশি নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে। আর সুস্থতার হারও এই রাজ্যে ৫০ শতাংশের ওপরে রয়েছে। অন্য দিকে মৃত্যুহারও মাত্র এক শতাংশের কিছু বেশি রয়েছে।

এক লক্ষের পথে এগোলেও দিল্লির পরিস্থিতি কিছুটা থিতু হচ্ছে

দিল্লির করোনা-পরিস্থিতি কিছুটা থিতু হচ্ছে বলেই মনে করছে রাজ্য সরকার। গত কয়েক দিন ধরেই নতুন আক্রান্তের সংখ্যা দুই থেকে আড়াই হাজারের মধ্যে ঘোরাফেরা করছে। কিছু দিন আগেও সংখ্যাটা সাড়ে তিন হাজারের ওপরে ছিল। ফলে দিল্লিতে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ২৫৩০ হলেও কিছুটা স্বস্তিতেই রয়েছে প্রশাসন। রাজধানীতে সুস্থতার হারও বিপুল ( ৬৯.৩০ শতাংশ)। দিল্লিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪ হাজারের গণ্ডি পেরোলেও সক্রিয় রোগী রয়েছেন মাত্র ২৬,১৪৮।

পশ্চিমবঙ্গকে টপকে যাওয়ার পথে তেলঙ্গানা, কর্নাটক

পশ্চিমবঙ্গের মানুষ এই পরিসংখ্যানে কিছুটা হলেও স্বস্তি পেতে পারেন যে গত কয়েক দিনে যে প্রবণতা দেখা যাচ্ছে তাতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় পশ্চিমবঙ্গকে টপকে যেতে চলেছে তেলঙ্গানা আর কর্নাটক।

এর মধ্যে তেলঙ্গানার ছবি, সব থেকে ভয়াবহ। গত ২৪ ঘণ্টায় এ রাজ্যে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১,৮৯২ জন। এর ফলে এই রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন চলে এসেছে ২০,৪৬২-তে। পশ্চিমবঙ্গে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ২০,৪৮৮। কিন্তু তেলঙ্গানার কাছে ভয়াবহ ব্যাপারটি হল তেলঙ্গানায় যত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে, তার পাঁচগুণ বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে।

পিছিয়ে নেই কর্নাটকও। গত ২৪ ঘণ্টায় এ রাজ্যে ১৬০০-এর বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯,৭১০। তেলঙ্গানা আর কর্নাটকে সুস্থতার হার ৫০ শতাংশের নীচে রয়েছে।

মোট নমুনা পরীক্ষা

আইসিএমআরের তথ্য বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২ লক্ষ ৪২ হাজার ৩৮৩টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত ভারতে ৯৫ লক্ষ ৪০ হাজার ১৩২টি নমুনা পরীক্ষা হয়ে গিয়েছে।

Continue Reading
Advertisement
দেশ39 mins ago

করোনায় মৃত্যু ছেলের, আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন দম্পতি!

বিদেশ1 hour ago

আমেরিকার টাইমস স্কোয়ারে “ভারত মাতা কি জয়”, চিনা পণ্য বর্জনের দাবিতে হুঙ্কার

Income Tax
শিল্প-বাণিজ্য2 hours ago

আয়কর দাখিলের সময়সীমা বাড়ল

কলকাতার পুজো3 hours ago

চোরবাগান চট্টোপাধ্যায় পরিবারের দুর্গাপূজায় ভোগ রান্না করেন বাড়ির পুরুষ সদস্যরা

বিনোদন3 hours ago

ময়দান: সৈয়দ আবদুল রহিমের বায়োপিক মুক্তির নতুন দিন জানালেন অজয় দেবগন

রাজ্য3 hours ago

সারা দেশের তুলনায় পশ্চিমবঙ্গে বেকার সমস্যা অনেক কম: মুখ্যমন্ত্রী

কলকাতা5 hours ago

কলকাতায় অতিসংক্রমিত ১৬টি অঞ্চলকে পুরোপুরি সিল করে দেওয়ার প্রস্তুতি

দেশ6 hours ago

৩ লক্ষ টাকায় সোনার মাস্ক, করোনা থেকে মুক্তি মিলবে কি না জানেন না

দেশ7 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২২,৭৭১, সুস্থ ১৪,৩৩৫

ক্রিকেট3 days ago

আইসিসির চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন শশাঙ্ক মনোহর, এ বার কি সৌরভ?

ক্রিকেট3 days ago

২০১১ বিশ্বকাপ কাণ্ড: ফাইনালে খেলা ক্রিকেটারকে জিজ্ঞাসাবাদ শ্রীলঙ্কা পুলিশের

দেশ1 day ago

দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যায় নতুন রেকর্ড, সুস্থতাতেও রেকর্ড

ক্রিকেট2 days ago

চলে গেলেন ‘থ্রি ডব্লু’-এর শেষ জন স্যার এভার্টন উইকস, শেষ হল একটা অধ্যায়

ক্রিকেট2 days ago

২০১১ বিশ্বকাপ কাণ্ড: জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হল কুমার সঙ্গকারা, মাহেলা জয়বর্ধনকে

শিল্প-বাণিজ্য3 days ago

পিপিএফ, এনএসসি-সহ অন্যান্য ক্ষুদ্র সঞ্চয় প্রকল্পে সুদের হার অপরিবর্তিত

SBI ATM
শিল্প-বাণিজ্য2 days ago

এসবিআই এটিএমে টাকা তোলার নিয়ম বদলে গেল

নজরে