দেহরাদুন: গঙ্গাকে ‘জীবন্ত সত্তা’র মর্যাদা দিল উত্তরাখণ্ড হাইকোর্ট। সোমবার এক ঐতিহাসিক রায়ে আদালত জানিয়েছে গঙ্গা নদীই ভারতের ‘প্রাচীনতম জীবন্ত সত্তা’। ভারতের দীর্ঘতম নদী গঙ্গার পাশাপাশি যমুনাকেও জীবন্ত সত্তা বলে রায় দিয়েছে আদালত।


এই রায়ের ফলে ভারতীয় সংবিধান অনুসারে দেশের যে কোনো নাগরিক যা যা অধিকার ভোগ করেন, তার সবই ভোগ করবে এই দুই নদী। 


বিচারপতি রাজীব শর্মা ও অলোক সিং-এর বেঞ্চ জানিয়েছে কোনো ফ্যামিলি ট্রাস্ট বা কোনো সংস্থা যে সব সাংবিধানিক অধিকার ভোগ করে, দুই নদীও সেই সব অধিকার ভোগ করবে। এর জন্য দুই নদীর অভিভাবকও ঠিক করে দিয়েছে আদালত। উত্তরাখণ্ডের মুখ্যসচিব ও অ্যাডভোকেট জেনারেল হবেন গঙ্গা-যমুনার অভিভাবক। রাজ্য প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্তারা লক্ষ্য রাখবেন যাতে দুই নদীর অধিকার রক্ষিত হয়। আদালতের ভাষায়, “নদীর স্বাস্থ্য ও সার্বিক ভালমন্দ”ও দেখভাল করবেন তাঁরা।

উত্তরাখণ্ড সরকারকে আট সপ্তাহের মধ্যে গঙ্গা ম্যানেজমেন্ট বোর্ড গঠনেরও নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

গত ডিসেম্বরে আইনজীবী ললিত মিগলানি ও এম সি পন্থ জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন। গঙ্গার দূষণই ছিল তাঁদের মামলার মূল উপজীব্য। এ বিষয়ে আরও একটি মামলা দায়ের করেছথিলেন হরিদ্বারের বাসিন্দা মহম্মদ সেলিম।

মাত্র দিন পাঁচেক আগেই নিউজিল্যান্ডের সংসদ সে দেশের ওয়াঙ্গানুই নদীকে মানুষের মর্যাদা দিয়েছে। ওয়াঙ্গানুই পৃথিবীর প্রথম নদী, যাকে মানুষের অধিকার দেওয়া হয়। তারপরই এই মর্যাদা পেল গঙ্গা ও যমুনা। 

আরও পড়ুন: দুনিয়ায় প্রথম, একটি নদীকে মানুষের আইনি মর্যাদা দিল নিউজিল্যান্ড

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন