সুবোধ কুমার সিংহ

বুলন্দশহর: তুমুল অশান্তি এবং পুলিশ খুনের ঘটনায় সংবাদের শিরোনামে এসেছে বুলন্দশহর। এর ঠিক দু’দিন আগেও সংবাদ শিরোনামে এসেছিল এই শহর। তবে সম্পূর্ণ ভিন্ন কারণে। মুসলিমদের একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই অনুষ্ঠানের জন্য স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায় একটি শনি মন্দিরের দরজাও খুলে দিয়েছিল। পুলিশের সন্দেহ, এই সাম্প্রদায়িক সহিষ্ণুতার পরিস্থিতিকে ব্যাঘাত দেওয়ার জন্য ইচ্ছাকৃত ভাবেই এই অশান্তি লাগিয়েছে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি।

সোমবার কয়েকটি গবাদি পশুর মৃতদেহ ঘিরে অশান্তি ছড়ায় বুলন্দশহরে। গোহত্যা করা হয়েছে, এই অভিযোগে তাণ্ডব শুরু করে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি। সেই অশান্তি থামাতে গিয়ে খুন হন পুলিশ আধিকারিক সুবোধ কুমার সিংহ। এক বিক্ষোভকারীও খুন হয়ে যান।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে রাজ্যের দাদরিতে গোমাংস রাখার গুজবে খুন হন মহম্মদ আকলাখ। সেই হত্যার তদন্তের দায়িত্ব ছিলেন সুবোধ। কিন্তু কোনো অজ্ঞাত কারণ বসত, তাঁকে সেই তদন্তের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। সুবোধের পরিবাদের অভিযোগ, এই তদন্ত করার জন্যই খুন হতে হল তাঁকে। এই পুলিশ আধিকারিকের মৃত্যুর পরিপ্রেক্ষিতে, তাঁর পরিবারকে ৪০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ঘোষণা করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। সেই ক্ষতিপূরণ গ্রহণ করা হবে না বলেই সাফ জানিয়ে দিয়েছে পরিবাদ।

এ দিকে গবাদি পশুর যে মৃতদেহগুলি ঘিরে এমন অশান্তি ছড়াল, সেইগুলির ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ মনে করছে, এই ময়নাতদন্তেই পরিষ্কার হয়ে যাবে এগুলির স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে, না কি কোনো অন্যকিছু।  এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে মূল অভিযুক্ত বজরং দলের নেতা যোগেশ রাজ এখনও ফেরার।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here