খবরঅনলাইন ডেস্ক: কেরল তথা গোটা ভারতে কমিউনিস্ট আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ কেআর গৌরী তথা গৌরী আম্মা প্রয়াত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে তিরুঅনন্তপুরমের একটি হাসপাতালে মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ১০২ বছর। বার্ধক্যজনিত অসুস্থতায় ভুগছিলেন তিনি।

১৯৫৭ সালে কেরলে ইএমএস নাম্বুদিরিপাদের নেতৃত্বে কমিউনিস্ট সরকার গঠিত হয়। ভারতে সেটাই ছিল প্রথম কমিউনিস্ট সরকার। সেই সরকারের মন্ত্রীসভার শেষ জীবিত সদস্য ছিলেন গৌরী আম্মা। কমিউনিস্ট পার্টি ভাগ হয়ে গেলে সিপিএমের সদস্য হন গৌরী। তবে ১৯৯৪ সালে তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করে সিপিএম নেতৃত্ব।

Loading videos...

এর পরে জনাধিপত্য সংরক্ষণ সমিতি গঠন করেন গৌরী। কেরলে বামজোটের শরিক এই দলটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব কিছু দিন আগে পর্যন্তও পালন করে গিয়েছেন তিনি। বয়সজনিত কারণে কিছু দিন আগেই সেই পদ থেকে ইস্তফা দেন তিনি।

১৯১৯ সালের ১৪ জুলাই আলাপুড়া জেলার পাত্তানাকাড়ে জন্মগ্রহণ করেন গৌরী। তথাকথিত নিম্নশ্রেণিভুক্ত এঝাভা সম্প্রদায়ে জন্ম তাঁর। ওই সম্প্রদায় থেকে তিনিই প্রথম মহিলা যিনি আইনে ডিগ্রি পেয়েছিলেন এবং পরবর্তী কালে তিনিই প্রথম মহিলা আইনজীবীও হন।

কেরলে গণতান্ত্রিক ভাবে নির্বাচিত প্রথম কমিউনিস্ট সরকারের একমাত্র মহিলা বিধায়ক ছিলেন গৌরী। সে বার ভূমি রাজস্ব দফতরের মন্ত্রী হন তিনি। এর পর ১৯৬৭, ১৯৮০ এবং ১৯৮৭ সালে গঠিত কমিউনিস্ট তথা সিপিএম নেতৃত্বাধীন সরকারের মন্ত্রীসভারও সদস্য ছিলেন তিনি।

গৌরী আম্মার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে রাজনৈতিক মহলে। কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন তাঁর শোকবার্তায় লিখেছেন, “কেরলে কমিউনিস্ট আন্দোলন গড়ে তুলতে গৌরী আম্মা যে ভূমিকা পালন করেছিলেন তা অতুলনীয়। তিনি একজন অসামান্য ব্যক্তিত্ব যিনি তাঁর অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে আমাদের সামাজিক জীবন পরিচালনা করতে পেরেছিলেন।”

আরও পড়ুন Vaccination Drive: এ রাজ্যে কমবয়সিদের টিকাকরণ শুরু নিয়ে কী বললেন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.