shivraj singh chauhan

ভোপাল: অনেক বছর ক্ষমতায় থাকার পরে এ বার মধ্যপ্রদেশে কিছুটা চাপে রয়েছে বিজেপি। সেখানে প্রতিষ্ঠান-বিরোধিতার হাওয়া ক্রমশ বাড়ছে। এই আবহে ক্ষমতায় থাকতে কিছু ‘চমকপ্রদ’ করতেই হবে।

সেই ‘চমকপ্রদ’ কাজটাই করে দেখাল মধ্যপ্রদেশের শিবরাজ সরকার। পাঁচ জন ‘বাবা’কে প্রতিমন্ত্রীর স্বীকৃতি দিয়ে দিল তারা। যে পাঁচ জন ধর্মগুরুকে এই স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে, তাদের মধ্যে এক জন ‘কম্পিউটার বাবা’ হিসেবে পরিচিত। বাকি চার জন হলেন, নর্মদানন্দ মহারাজ, হরিহরানন্দ মহারাজ, বায়ু মহারাজ, পণ্ডিত যোগেন্দ্র মহান্ত।

উল্লেখ্য, নর্মদা সংস্কারের লক্ষ্যে যে কমিটি তৈরি হয়েছে, তাতে এই পাঁচ জন ধর্মগুরুই রয়েছেন। বিরোধী কংগ্রেসের মতে, শুধুমাত্র ভোটের কথা মাথায় রেখেই এই কাণ্ড করেছে রাজ্য সরকার। যাতে এই পাঁচ জন গুরুর ভক্তদের পাশে টানা যায়। কংগ্রেসের মুখপাত্র পঙ্কজ চতুর্বেদীর কথায়, “নিজের পাপ মুছে ফেলার জন্য এই কাজ করেছেন শিবরাজ সিংহ। নর্মদা সংস্কারের জন্য আদতে কোনো কাজই করেননি তিনি।”

অন্য দিকে যাবতীয় বিরোধিতা নস্যাৎ করেছে বিজেপি সরকার। রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র রজনীশ আগরওয়ালের কথায়, “নর্মদা সংস্কারের কাজ আরও ত্বরান্বিত করার জন্য এই ধর্মগুরুদের মন্ত্রীর মর্যাদা দেওয়া হয়েছে। নর্মদা সংস্কারে সাধারণ মানুষকে যাতে কাছে টানা যায়, এই কারণেই এই পদক্ষেপ করা হয়েছে।”

যদিও কিছু দিন আগে বেসুরো গেয়েছিলেন ‘কম্পিউটার বাবা’। জানিয়ে দিয়েছিলেন, নর্মদা সংস্কারে ব্যাপক দুর্নীতি ফাঁস করার জন্য রথযাত্রা করবেন তিনি। তাঁর মুখ বন্ধ করার জন্য মধ্যপ্রদেশ সরকার এই পদক্ষেপ করেছে কি না সে ব্যাপারে অবশ্য কিছু জানা যায়নি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here