rahul and adhir

ওয়েবডেস্ক: সিপিএমের ২২তম পার্টি কংগ্রেসে সীতারাম ইয়েচুরি গোষ্ঠীর হাতে রাশ বজায় থাকার ঘটনা থেকেই আগামী ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ঘুঁটি সাজাতে শুরু করে দিয়েছে জাতীয় কংগ্রেস। তাদের সঙ্গে সিপিএমের সরাসরি জোট না হলেও শর্তসাপেক্ষ রণকৌশলগত সমঝোতা হতে পারে, তেমন ইঙ্গিতই দিয়ে রাখলেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী।

গত মঙ্গলবার নয়াদিল্লিতে গিয়ে রাহুলের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন পশ্চিমবঙ্গের প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী। রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে যে ডামাডোল চলছে, তার বিশদ বিবরণ তিনি দেন রাহুলকে। সব কিছু শোনানোর পর অধীরবাবু রাহুলেকে স্পষ্টতই জি়্জ্ঞাসা করেন, তিনি কী করবেন?

উত্তরে রাহুল বলেন, “আপনি যা করছেন, ঠিকই করছেন”। অর্থাৎ রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরোধিতা বজায় রাখতে হবে। এমনিতে এ বার পঞ্চায়েত ভোটে সিপিএম-কংগ্রেসের যৌথ মনোনয়ন সংখ্যাকেও ছাপিয়ে গিয়েছে বিজেপির প্রার্থী সংখ্যা। ফলে নির্বাচনে এই দুই বিরোধী দলের থেকে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে বিজেপি। আরও আগে থেকে কংগ্রেস-সিপিএম যৌথ ভাবে যে যেখানে শক্তিশালী, সেখানে সে প্রার্থী দেওয়ার পরিকল্পনা মতো এগোলে ভালো হতে বলেই মনে করছেন দুই দলের নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন: রাজনাথ সিংহকে লেখা চিঠিতে কী আবেদন রাখলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি?

তবে এখনই সিপিএম এবং কংগ্রেসের সমঝোতা নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলার সময় আসেনি বলেই মনে করেন দুই দলের উচ্চ নেতৃত্ব। গত মঙ্গলবার সিপিএম নেতা গৌতম দেব এ ব্যাপারে জোরালো সওয়াল করলেও দলগত ভাবে কোনো সিদ্ধান্ত যে এত সহজে নেওয়া‌ সম্ভব নয়, তা ভালোই জানেন উভয় দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here