whatsapp
ছবি: ডেইলি এক্সপ্রেস

ওয়েবডেস্ক: কেন্দ্র যতই হুঁশিয়ারি দিক, ভুয়ো খবরের উৎস জানানো সম্ভব নয়। তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রককে এই কথা জানিয়ে দিল হোয়াটসঅ্যাপ।

গত কয়েক মাসে হোয়াটসঅ্যাপে গুজব ও ভুয়ো খবর ছড়ানোর জেরে গণপিটুনিতে প্রাণ হারিয়েছিলেন অন্তত ২০ জন। এ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য হোয়াটসআপকে বেশ কয়েকবার চিঠি পাঠায় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক। এই সপ্তাহের শুরুতেই ভারতে এসেছিলেন হোয়াটসঅ্যাপের প্রধান ক্রিস ড্যানিয়েলস। তাঁর সামনেও এই ভুয়ো খবর ছড়ানোর জন্য হোয়াটসআপকেই দায়ী করেছিলেন কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। সেই কারণেই এর সমাধানসূত্র খুঁজে বের করার জন্য হোয়াটসঅ্যাপকেই নির্দেশ দিয়েছিল কেন্দ্র।

আরও পড়ুন ‘কেরলকে বাঁচাতে গেলে বিদেশি সাহায্য দরকার’, কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষোভ খোদ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

কিন্তু হোয়াটসঅ্যাপ জানিয়েছে, ভারতের দাবি মেনে নিলে তাদের ব্যবসার মূল নীতিটাই প্রশ্নের মুখে পড়বে। তাই এই দাবির কোনও প্রযুক্তিগত সমাধান এই মুহুর্তে দিতে পারবে না তারা। তবে ভারতের অন্যান্য কিছু দাবি মেনে নিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। ভারতে হোয়াটসঅ্যাপের কোনও অফিস নেই বলে নিজেদের অসুবিধের কথা জানিয়েছিল তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক। সেই দাবি মেনে নিয়ে একটি অফিস করার কথা জানিয়েছে তারা।

তবে ভুয়ো খবর আটকাতে ব্যবহারকারীদের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানোর কাজে উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন