করোনার তৃতীয় ঢেউ নিয়ে নিজের মত বদলে দিলেন এইমসের প্রধান রণদীপ গুলেরিয়া

0
রণদীপ গুলেরিয়া
[রণদীপ গুলেরিয়া]

খবরঅনলাইন ডেস্ক: করোনার সম্ভাব্য তৃতীয় ঢেউ নিয়ে শুক্রবারই স্বস্তির খবর শুনিয়েছিলেন এইমসের প্রধান ডা. রণদীপ গুলেরিয়া। তার ২৪ ঘণ্টাও কাটল না, ফের আশঙ্কার কথা শুনিয়ে দিলেন তিনি। বললেন, ৬ থেকে ৮ সপ্তাহের মধ্যেই দেশে তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে করোনার।

শনিবার সকালে গুলেরিয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘কোভিড সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউয়ের আঘাত অনিবার্য। এই পরিস্থিতিতে বিশাল জনসংখ্যার এই দেশে টিকাকরণ কর্মসূচি সম্পন্ন করার সব চেয়ে বড়ো চ্যালেঞ্জ।”

Loading videos...

অথচ শুক্রবারই রণদীপ বলেছিলেন, টিকাকরণ ও প্রাকৃতিক ভাবে শরীরে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার ফলেই তৃতীয় ঢেউয়ের তীব্রতা কিছুটা কমবে। শুধু গুলেরিয়াই নন, অনেক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞেরই ধারণা, তৃতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণের তীব্রতা অনেকটাই কম হবে। তাঁদের যুক্তি, তৃতীয় ঢেউ আসার আগে দেশের জনসংখ্যার একটা বড়ো অংশই কোভিডরোধী টিকার অন্তত একটি করে ডোজ পেয়ে যাবেন।

বিভিন্ন রাজ্যে ইতিমধ্যেই লকডাউন সংক্রান্ত বিধিনিষেধ শিথিল করা শুরু হয়েছে। এই কারণেই তৃতীয় ঢেউ কাঙ্ক্ষিত সময়ের আগেই চলে আসতে পারে বলে মন করেন গুলেরিয়া। এই প্রসঙ্গে এইমস প্রধানের মন্তব্য, ‘‘দ্বিতীয় ঢেউয়ের উদাহরণ থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে।’’ তৃতীয় ঢেউ আসার আগে সংক্রমণের ‘হটস্পট’গুলি চিহ্নিত করে কোভিড পরীক্ষা এবং চিকিৎসা সংক্রান্ত পরিকাঠামো গড়ে তোলার প্রয়োজনীয়তার কথাও বলেছেন রণদীপ।

আবার একটা মহলের বক্তব্য, তৃতীয় ঢেউ আসতে পারে অক্টোবর-নভেম্বরে। এর মূল কারণ অক্টোবরে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে উৎসবের মরশুম শুরু হয়ে যাবে। কিন্তু তার আগে বর্ষার কারণে দেশের সুপার স্প্রেডিং ইভেন্ট কিছু নেই। তাই খুব তাড়াতাড়ি তৃতীয় ঢেউ আসবে না।

মোদ্দা কথা হল, তৃতীয় ঢেউ কবে আসবে, কী রকম দাপটে আসবে বা আদৌ আসবে কি না, সেটা নিয়ে নিশ্চিত নন কেউই। তাই এই নিয়ে বাড়তি আতঙ্কের কোনো কারণ এখনই আছে বলে মনে করে না অনেক বিশেষজ্ঞই। তবে এটা ঠিক, টিকাকরণ হয়ে গেলেও স্বাস্থ্যবিধি কঠোর ভাবে পালন করার কোনো বিকল্প নেই।

আরও পড়তে পারেন শনিবার সকাল থেকে ফের বৃষ্টি শুরু, দুর্যোগ আর কতদিন?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.