gangasagar

হিন্দু ধর্মে সূর্যদেবকে প্রত্যক্ষ দেবতা বলা হয়। যে দেবদেবী প্রতিদিন দর্শন দেন, তাঁদের মধ্যে সূর্য অন্যতম। সূর্য বিশ্বে শক্তি সঞ্চার করেন। পৃথিবীতে বসবাসকারী সমস্ত প্রাণী সৌরশক্তির সাহায্যে পরিচালিত হয়।

এ ছাড়াও ভারতীয় জ্যোতিষশাস্ত্রে ৯টি গ্রহের অধিপতি বলে মনে করা হয় সূর্যকে। বিশ্বাস করা হয়, সূর্য নিজের নিয়মিত গতিতে রাশি পরিবর্তন করে। সূর্যের এই রাশি পরিবর্তনকে বলা হয় সংক্রান্তি। এ ভাবেই বছরে ১২টি সংক্রান্তি তিথি হয়। যার মধ্যে মকর সংক্রান্তি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

মকর সংক্রান্তি বা উত্তরায়ণ

হিন্দু ধর্ম ও জ্যোতিষশাস্ত্র অনুযায়ী, সূর্য যখন মকর রাশিতে প্রবেশ করে তখন এই ঘটনাকে মকর সংক্রান্তি বলা হয়। সূর্যের গতি নিয়মিত, যার কারণে প্রতি বছর একটি নির্দিষ্ট দিনে মকর সংক্রান্তি পালিত হয়। এ বছরও মকর সংক্রান্তি ১৪ জানুয়ারি পালিত হবে।

এ বছরের ১৪ জানুয়ারি শুক্রবার। মকর সংক্রান্তির দিনটিকে অত্যন্ত শুভ ও বিশেষ বলে মনে করা হয়। এই দিনে সারা ভারতে কোনো না কোনো উৎসব পালিত হয়। উত্তর ভারতে, যেখানে এই দিনটিকে খিচড়ি বা উত্তরায়ণ হিসেবে পালন করা হয়। আবার দক্ষিণ ভারতে পোঙ্গল এবং অসমে বিহু হিসাবে এটি উদযাপনের একটি ঐতিহ্য রয়েছে।

জ্যোতিষশাস্ত্র অনুযায়ী, বছরে ১২টি সংক্রান্তি হয়, তবে এর মধ্যে মকর সংক্রান্তির বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। এই দিনে সূর্যের মকর রাশিতে প্রবেশের মধ্য দিয়ে উত্তরায়ণ শুরু হয়। তাই এই দিনটিকে উত্তরায়ণও বলা হয়। এ দিন থেকে দেশে দিন দীর্ঘ এবং রাত ছোটো হতে থাকে। শীত কমে গিয়ে শুরু হয় বসন্ত। এ দিন পুজিত হন সূর্য দেবতা। শাস্ত্র মতে, সূর্য হল আত্মা, পিতা, মান-সম্মান, সাফল্য, উন্নতি, সকলের প্রতীক। তাঁকে তুষ্ট করতে পারলে সব কার্যে সিদ্ধি লাভ করা সম্ভব।

কেন গঙ্গাসাগর

gangasagar

হিন্দুদের মতে, সূর্যের উত্তরায়ণ অবস্থানকে দেবতাদের দিন বলা হয়। এই সময়ে, মানুষ দেবতাদের আশীর্বাদে নতুন শক্তি এবং উৎসাহের সঙ্গে নিজের সমস্ত ইচ্ছে পূরণ করে। এই দিনে গঙ্গা, যমুনা প্রভৃতি পবিত্র নদীতে স্নান করা বিশেষ ফলদায়ক বলেও মনে করা হয়।

মকর সংক্রান্তির দিন পুণ্যলাভের জন্য পবিত্র নদীতে স্নানের রীতি বহু বছর ধরে প্রচলিত। পুণ্যলাভের জন্য লক্ষ লক্ষ মানুষ সাগরের জলে ডুব দেন। এই সময় গঙ্গাসাগরের উদ্দেশে রওনা দেন পুণ্যার্থীরা। সেখানে সাগরে স্নান সেরে কপিল মুনির আশ্রম দর্শনের রীতি বহু যুগ ধরে প্রচলিত। পুরাণ অনুযায়ী, কপিল মুনি বিষ্ণুর অবতার। ব্রক্ষার পৌত্র মনুর বংশধর। তাই এই দিন তাঁর আশ্রম দর্শনে যান পুণ্যার্থীরা।

*সংগৃহীত তথ্য

আরও পড়তে পারেন: মকর সংক্রান্তিতে বিশ্বব্যাপী সূর্য নমস্কার অনুষ্ঠানের আয়োজন কেন্দ্রের

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন