karnataka

ওয়েবডেস্ক: কর্নাটকে আড়াই দিনের বিজেপি সরকারের পতনের দায় প্রকৃতপক্ষে কার?

এক দিকে যখন কংগ্রেস-জেডি (এস) জোটের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে কুমারস্বামী শপথ নিতে চলেছেন, তখন বিজেপি শিবিরে এই প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা চলছে। তবে প্রশ্নটি অবশ্য ছুড়ে দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরম।

কর্নাটক বিধানসভায় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে শনিবার বিকেল চারটেয় আস্থাভোটের আযোজন করেছিল বিজেপি। কিন্তু প্রস্তাব পাঠের পরই সংবিধানের তোয়াক্কা না করে মুখ্যমন্ত্রীপদে শপথ নেওয়া বি এস ইয়েদিয়ুরাপ্পা পদত্যাগ করায় ভন্ডুল হয়ে যায় ভোটের আয়োজন। এই ঘটনার পর স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে, সরকার গঠনের প্রয়োজনীয় বিধায়ক জোগাড় করতে না পেরেই পিছু হঠতে হল বিজেপি-কে। কিন্তু তা হলে গত তিন ধরে ঠিক কী কারণে গেরুয়া শিবির এতটা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে সরকার গঠনের কথা বলে এসেছে? নেপথ্যে আসলে কে?

ঘটনাক্রম থেকে এ ব্যাপারে উঠে আসতে পারে বেশ কয়েকটি নাম। হতে পারে  তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার তীব্র বাসনা থেকে ইয়েদিয়ুরাপ্পাই হতে পারেন এই পুতুলনাচের রূপকার। তবে চিদম্বরমের টুইটে ইয়েদিয়ুরাপ্পাকে ‘হতভাগ্য’ আখ্যা দেওয়ায় তিনি যে পুতুল নাচিয়ে নন, তা স্পষ্ট।   আবার উঠে আসছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভাড়েকরের নামও। কারণ তিনিই কর্নাটকের ভোট-যুদ্ধে পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন। ফলাফল ঘোষণার পর থেকে সংবাদ মাধ্যমে বারবার উঠে এসেছে তাঁর মুখ এবং মুখনিসৃত চ্যালেঞ্চ। কিন্তু তিনিও তো এখন পর্দার আড়ালে।

তাহলে কে? তিনি স্বয়ং কর্নাটকের সর্বোচ্চ সাংবিধানিক পদে থাকা রাজ্যপাল বজুভাই বালা নন তো?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here