Rajkumar yadav
পদযাত্রায় রাজকুমার। ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: বিহারের সিপিআই (এমএল) নেতা রাজকুমার যাদবকে সামনে রেখে কোডারমা কেন্দ্রটি এখন রাজনীতির চর্চায়। যদিও আর এক তরুণ বামপন্থী নেতা তথা বিহারেরই বেগুসরাইয়ের প্রার্থী কানহাইয়া কুমারের মতো সংবাদ মাধ্যমের ততটা দাক্ষিণ্য জোটেনি রাজুর বরাতে। কিন্তু কোডারমার এ বারের লোকসভা রণ-সমীকরণই তাঁকে জোগাচ্ছে বাড়তি অক্সিজেন। কে এই রাজকুমার?

গত ১১ এপ্রিল কোডারমা লোকসভা থেকে মনোনয়ন জমা করলেন রাজকুমার। তাঁর সঙ্গে ছিলেন নিরশার বিধায়ক অরূপ চট্টোপাধ্যায়। রাজকুমার সম্পর্কে তিনি জানান, “ঝাড়খণ্ড বিধানসভায় রাজকুমারই একমাত্র বিধায়ক, যিনি বিধানসভায় যে কোনো গণদাবির কথাই সমান গুরুত্ব গিয়ে উত্থাপন করেন। সেটা হতে পারে অঙ্গনওয়াড়ি, পার্শ্বশিক্ষক বা সাধারণ মানুষের অতিআবশ্যক যে কোনো রাজ্য সরকারি কর্মসূচি। রাঁচি থেকেই হোক বা রাজ্যের অন্য কোনো প্রান্ত থেকে, যে কোনো বিক্ষোভ-সমাবেশে তাঁকে দেখা যাবেই। এবং সেটা একেবারে সামনের সারিতে থেকে নেতৃত্ব দেওয়াতেই। ফলে কোডারমা থেকে রাজকুমার সংসদে গেলে শুধুমাত্র তাঁর নির্বাচনী ক্ষেত্রের মানুষই যে উপকৃত হবেন, সেটা নয়। গোটা দেশই এক জন যথার্থ জনপ্রতিনিধিকে পাবে”।

রাজকুমার যাদব, কোডারমায় সিপিআই (এমএল) প্রার্থী। ম্যাট্রিক পাশ। ২০০৪ সালে জেলের ভিতর থেকে প্রথম লোকসভা নির্বাচনে লড়ে ভোট পেয়েছিলেন ১,৩৬,০০০। ২০০৯-এর লোকসভা নির্বাচনে ১,৫০,০০০ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় হন। ২০১৪ সালে মোদী-ঝড় অগ্রাহ্য করে ২,৬৭,০০০ ভোট পেয়ে ফের দ্বিতীয় স্থান দখল করেন। বিভিন্ন গণআন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত রাজকুমার ২০১৪ সালের ঝাড়খণ্ড বিধানসভা নির্বাচনে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বাবুলাল মারাণ্ডিকে পরাজিত করে বর্তমানে বিধায়ক। এমনটাও শোনা গিয়েছে, তাঁর কাছে হেরে যাওয়ার ভয়ে বিজেপি তাদের কোডারমার বর্তমান সাংসদকে টিকিটই দেয়নি।

বিজেপিকে ঠেকাতে কোডারমায় এ বার কংগ্রেস সমর্থিত ধর্মনিরপেক্ষ জোট প্রার্থী করেছে ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ঝাড়খণ্ড বিকাশ মোর্চা (প্রজাতান্ত্রিক) বা জেভিএম(পি)-র সুপ্রিমো বাবুলাল মারাণ্ডিকে। অন্য দিকে প্রায় কাঁটা দিয়ে কাঁটা তুলতে বিজেপি প্রার্থী করেছে সদ্য প্রাক্তন আরজেডি নেত্রী অন্নপূর্ণাদেবীকে। ফলে এক দিকে মহাজোট আর অন্য দিকে বিজেপির মাঝেও স-ক্যারিশ্মায় উজ্জ্বল রাজকুমার।

[ আরও পড়ুন: ৩ দশক পর ফের বিহার থেকে সংসদে যাওয়ার জোরালো সম্ভাবনা এক মার্কসবাদী-লেনিনবাদী প্রার্থীর ]

লড়াই যে ত্রিমুখী- সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই, কিন্তু নজরকাড়া কেন্দ্রে এ বার রাজনৈতিক মহলের নজর সেই রাজকুমারেই উপরই। কারণ, এক দিকে যাদব ভোটব্যাঙ্কের কাটাকুটির অঙ্কে যেমন তাঁর ভোট পকেট ভরার সম্ভাবনা প্রবল, তেমনই ভূমিহার এবং কুশওয়ারদের একটা বড়ো অংশের সমর্থনও তাঁর দিকে যেতে পারে বলেই রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মত।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here