congress

ওয়েবডেস্ক: বিভিন্ন বুথফেরত সমীক্ষায় উঠে এসেছে বহুবিধ মত। তবে কোনো কোনো সমীক্ষা বিজেপিকে এগিয়ে রাখলেও কোনো কোনো সমীক্ষার মতে, এ বারের ভোটে কংগ্রেস পেতে পারে সর্বোচ্চ আসন। কিন্তু ২২২ আসনের বিধানসভায় সরকার গড়তে প্রয়োজনীয় ১১২টি আসন যে কোনো একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দল আদায় করতে সক্ষম হচ্ছে না, এ ব্যাপারে এক মত সবক’টি সমীক্ষাই। স্বাভাবিক ভাবেই কর্নাটক বিজেপি বা কংগ্রেস, যে দলই সরকার গঠনের উদ্যোগ নিক, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী দেবগৌড়ার জেডি (এস) যে মুখ্য ভূমিকা নিতে চলেছে, তা নিয়ে কোনো সন্দেহ প্রকাশ করেননি সমীক্ষকরা। তবে কংগ্রেসি মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়ার রবিবারের দ্বিপ্রাহরিক মন্তব্য নতুন করে জল্পনা সৃষ্টি করল কর্নাটকে রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে।

এ দিন সিদ্দারামাইয়া বলেন, তেমন পরিস্থিতি তৈরি হলে তিনি মুখ্যমন্ত্রীপদের দাবি থেকে বিরত হবেন। সে জায়গায় কংগ্রেস সরকার গঠনের পর্যাপ্ত আসন সংগ্রহ করতে পারলে তিনি হাইকমান্ডের কাছে আবেদন জানাবেন কোনো দলিত নেতাকে মুখ্যমন্ত্রী পদে বসানোর। ৬৯ বছরের প্রাক্তন জেডি (এস) নেতা তথা বর্তমান কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমি কারো বিরুদ্ধে নই। আপনি দেখুন, এমনকি বিধায়করা তাঁদের মতামত দিতে পারেন”।

সিদ্দারামাইয়ার এমন মন্তব্য যে তাঁর এক সময়ের রাজনৈতিক-সঙ্গী দেবগৌড়ার প্রতি উদ্দেশ করেই, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। দেবগৌড়া অতীতে বিজেপি এবং কংগ্রেস, দুই রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখে নিজের দলকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন। কিন্তু সিদ্দারামাইয়ার প্রতি তাঁর কোনো রকমের আলাদা অনুভূতি রয়েছে বলে শোনা যায় না। সরকার গঠনে কংগ্রেসকে সমর্থন দেওয়া হবে কি না, এমনকি বুথফেরত সমীক্ষা দেখার পর জেডি(এস) মুখপাত্র এমন প্রশ্নে পুরো দায় চাপিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেসের ঘাড়েই। সাম্প্রদায়িকতার প্রশ্নে কংগ্রেসের স্বচ্ছ্ব নীতি প্রকাশ্যে না আসা পর্যন্ত জেডি (এস) স্থির সিদ্ধান্ত নেবে না বলেও ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: বিজেপি না কংগ্রেস, কর্নাটকে কাদের সঙ্গে জোট বাঁধবে? জানিয়ে দিল দেবগৌড়ার দল

এমন পরিস্থিতিতে সিদ্দারামাইয়ার মন্তব্য হয়তো জেডি (এস)-এর প্রশ্নের আংশিক উত্তর বলেই অনুমান করা হচ্ছে। এমনটাও ধারণা করা হচ্ছে, ফলাফলে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ার জোরালো ইঙ্গিত পেয়ে কংগ্রেস এখন থেকেই জেডি (এস)-এর শর্ত পূরণে কয়েক ধাপ এগিয়ে রইল।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন