swetambari sharma

ওয়েবডেস্ক: “আমি কিছু বলব না, সারা দেশ বলবে আমি কী রকম,” বুদ্ধির প্রশ্নে এ ভাবেই পালটা জবাব দিলেন বিশেষ তদন্তকারী দলের দায়িত্বে থাকা একমাত্র মহিলা পুলিশ অফিসার শ্বেতাম্বরী শর্মা।

কাথুয়া ধর্ষণ মামলায় তদন্ত করার সময়ে বারবার বাধাবিপত্তির মুখে পড়তে হয়েছিল বলে কিছু দিন আগেই জানিয়েছিলেন শ্বেতাম্বরী। সেই বাধা যে কতটা বেশি ছিল, আইনজীবীর বয়ানেই সেটা প্রকাশ পেয়ে গিয়েছে বলে জানান তিনি। উল্লেখ্য, দিন দুয়েক আগে অভিযুক্তদের এক আইনজীবী অঙ্কুর শর্মা বলেন, “এক মহিলার আর কত বুদ্ধি থাকতে পারে!”

শ্বেতাম্বরী বলেন, “শুধুমাত্র মহিলা হওয়ার জন্য একজনের বুদ্ধি নিয়ে যখন প্রশ্ন তোলা হয় তখন তা আঘাত বই-কি। এই ধরনের উগ্র জাতীয়তাবাদী মন্তব্যের পালটা আমি কিছুই বলব না, যা বলার গোটা দেশ বলবে।”

আরও পড়ুন : ‘একজন মহিলা আর কত বুদ্ধিমতী হবেন?” আজব প্রশ্ন কাথুয়ায় অভিযুক্তদের আইনজীবীর

তদন্তের সময়ে কী বাধা পেয়েছিলেন তিনি সেটা বলতে গিয়ে শ্বেতাম্বরী বলেন, “একটা আন্দোলন চলছিল। অভিযুক্তদের থেকে বয়ান নেওয়া কোনো ভাবেই সহজ কাজ ছিল না।” প্রথম দিকে এই মামলায় খুব হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলেন বলেও জানান তিনি, তবে এখন সব ঠিক হয়ে গিয়েছে।

শ্বেতাম্বরীর আশা, কাথুয়ার নির্যাতিতাকে ঠিক ন্যায় দেবে আমাদের দেশের বিচারব্যবস্থা। তিনি বলেন, “আমার কোনো সন্দেহই নেই যে আমাদের বিচারব্যবস্থা ওই নির্যাতিতাকে ন্যায় দেবেই।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here