lalu prasad yadav

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি: উত্তরবঙ্গ সফরে আছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার দেশের ১০টি বিধানসভা এবং চারটি লোকসভার উপনির্বাচন এবং কর্নাটকের বকেয়া একটি বিধানসভার নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর তিনি শিলিগুড়ির উত্তরকন্যা ভবনে সাংবাদিক সম্মেলন করে নিজের মত ব্যক্ত করেন। তবে তাঁর বক্তব্যে উঠে আসা আরজেডি সুপ্রিমো লালুপ্রসাদ যাদবকে নিয়ে করা মন্তব্য বেশ ইঙ্গিতবাহী বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

মমতা বলেন, “যে যেখানে শক্তিশালী সে জিতেছে। এখান থেকেই পরিষ্কার। মানুষ বিজেপির উপর বীতশ্রদ্ধ। আসলে উপনির্বাচনের এই ফলাফল বিজেপির কাছে অশনি সংকেত। কারণ মানুষ কী চাইছে, সেটা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে। টানা ১৬ দিন পেট্রোল-ডিজেলের দাম বাড়ানোর পর মাত্র ১ পয়সা কমানো হয়েছে। এতে মানুষকে অপমান করা হয়েছে”।

mamata bandyopadhyay at uttarkanya bhavan
উত্তরকন্যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পাশাপাশি নি্র্বাচনী ফলের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, লালুকে জেলে ভরেও ওঁর দলকে হারানো যায়নি। তাঁর দলই বিহারে জিতল। নেতা জেলের ভিতরে থাকলেও তাঁর দল সমান শক্তিশালী।

আদতে লালুপ্রসাদ যাদব জেলে যাওয়ার পর বিহারে যে ক’টি উপনির্বাচন হয়েছে প্রত্যেকটিতেই ভালো করেছে তাঁর দল। মার্চে অনুষ্ঠিত জেহানাবাদ বিধানসভা উপনির্বাচনে জিতেছেন তাঁর দলের প্রার্থী কুমার কৃষ্ণমোহন ওরফে সুদয় যাদব। ওই কেন্দ্রেও আরজেডির মূখ্য প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল জেডি(ইউ)।

ওই একই সময়ে হয়েছে আরারিয়া লোকসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন। সেখানেও প্রায় দেড় লক্ষ ভোটের ব্যবধানে জিতেছেন আরজেডি প্রার্থী সরফরাজ আলম। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি প্রার্থী প্রদীপ সিংকে স্বাভাবিক ভাবেই সমর্থন করেছিল এনডিএ শরিক জেডি(ইউ)।

বৃহস্পতিবার উপনির্বাচনের ফল প্রকাশ হল বিহারের জোকিহাট বিধানসভায় জিতেছেন আরজেডি প্রার্থী শাহনওয়াজ। তিনি জেডি(ইউ)-র মহম্মদ মুর্শিদ আলমকে প্রায় ৪০ হাজার ভোটে পরাজিত করেছেন।

স্বভাবতই আরজেডি সুপ্রিমো যখন জেলে বসে রয়েছেন তখন দেখা যাচ্ছে তাঁর দল মোটেই দুর্বল হয়ে পড়েনি। তা হলে কি চক্রান্ত করে লালুকে জেলে রাখার যে দাবি এত দিন আরজেডি করে আসছে, তাকেই মান্যতা দিলেন মমতা?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here