নয়াদিল্লি: ফের পিছিয়ে গেল নির্ভয়াকাণ্ডের দোষীদের ফাঁসির দিন। ‘পরবর্তী নির্দেশ পর্যন্ত’ মৃত্যুদণ্ডে স্থগিতাদেশ দিয়েছে দিল্লির পাতিয়ালা হাউজ কোর্ট। আইনি জটিলতায় এই ফাঁসি স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

সোমবার অক্ষয় ঠাকুর, পবন গুপ্ত এবং মুকেশ সিংহের আইনজীবীরা ফাঁসির দিন ক্ষণ পিছিয়ে দেওয়ার আর্জি জানান। প্রথম পর্বের শুনানির পর ফাঁসি পিছোতে নারাজ বলে জানান বিচারক। এমনকি আইনজীবীদের তীব্র ভর্ৎসনা করে বিচারক বলেন, “আগুন নিয়ে খেলবেন না।” তখন পবনের আইনজীবী বলেন, তার মক্কেলের প্রাণভিক্ষার আর্জি এখনও রাষ্ট্রপতির কাছে বিচারাধীন রয়েছে।

তার পর দ্বিতীয় দফায় ফের শুনানি হয়। তার মধ্যেই রাষ্ট্রপতি প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ করে দেন। কিন্তু তবুও মঙ্গলবার ফাঁসি হচ্ছে না।

আইন অনুযায়ী, প্রাণদণ্ডে দণ্ডিতদের সমস্ত আইনি বিকল্প শেষ হওয়ার পরেও ১৪ দিন সময় দিতে হয় প্রস্তুতির জন্য। এই সময়ের মধ্যে দণ্ডিতদের মানসিক ভাবে তৈরি করা, পরিবারের লোকজনকে সমস্ত আইনি প্রক্রিয়া বোঝানো-সহ যাবতীয় প্রস্তুতির কাজ সারেন জেল কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ল

১৪ দিনের সময়সীমা যদি না দেওয়া হয় তা হলে জেল কর্তৃপক্ষের ভূমিকায় প্রশ্ন উঠতে পারে। এই সব কারণের জন্যই সম্ভবত ফের পিছিয়ে গেল ফাঁসির প্রক্রিয়া।

ইতিমধ্যেই তিন বার মৃত্যু পরোয়ানা জারি করে পাতিয়ালা হাউজ কোর্ট। প্রথম দু’বার আইনি জটিলতায় সেই পরোয়ানা কার্যকর হয়নি। তৃতীয় তথা শেষ জারি করা পরোয়ানা অনুযায়ী মঙ্গলবার সকাল ছ’টায় তিহাড় জেলে ফাঁসি হওয়ার কথা ছিল চার জনের।

মুকেশ-পবনদের ফাঁসির জন্য পাতিয়ালা আদালত নতুন কবে পরোয়ানা জারি করে এখন সেটাই দেখার।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন