kerala floods pinarai vijayan
বন্যার গ্রাসে রাজ্য। ছবি: টুইটার

ওয়েবডেস্ক: কেরলে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে শুরু করেছে মৃতের সংখ্যা। শেষ পাওয়া খবরে ৮ আগস্ট থেকে রাজ্যে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৭৪। তবে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমায় জোরকদমে উদ্ধারকাজে নামা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাস, শুক্রবার বিকেলের মধ্যেই সব বন্যাদুর্গত মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে।

কিছুক্ষণ আগেই একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন বিজয়ন। সেখানে তিনি বলেন, “আজ (শুক্রবার) বিকেলের মধ্যেই সবাইকে উদ্ধার করা হবে। এই লক্ষ্য পূরণ করার ব্যাপারে আমরা আশাবাদী। আমাদের আবেদনে সাড়া দিচ্ছে কেন্দ্র।”

আরও পড়ুন বন্যা বিধ্বস্ত কেরলে শিশু ও অন্ত:সত্ত্বা মহিলাকে দু:সাহসিক ভাবে বাঁচাল নৌসেনার বিমান, দেখুন ভিডিও

বিজয়ন বলেন, “সেনার ১৬টা দল, নৌসেনার ২৮টা দল, জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর ৩৯টা দল ত্রাণ কাজে নেমেছে।” এ ছাড়াও উপকূলরক্ষী বাহিনীর জওয়ানরাও উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিজয়ন। তিনি বলেন, “৮ আগস্ট থেকে এখনও পর্যন্ত ১৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এটা মহাপ্লাবন। তবে এই দুর্যোগ আমরা কাটিয়ে উঠবই।” মুখ্যমন্ত্রীর এই সাংবাদিক সম্মেলনের পরেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় আরও দশজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

গুজবে যাতে কান দেওয়া না হয়, সে কথাও বারবার বলছেন বিজয়ন। উল্লেখ্য, মুল্লাপেরিয়ার জলাধারে ফাটল ধরার গুজব বেশ কয়েক দিন ধরেই ছড়াচ্ছে রাজ্যে। কোনো বাঁধে কোনো ফাটল নেই বলে বারবার আশ্বস্ত করেছেন বিজয়ন। পাশাপাশি গুজব যারা রটাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

গোটা রাজ্যে মোট ১৫৬৮ ত্রাণ শিবিরে ২ লক্ষ মানুষ রয়েছেন, তবে এখনও অনেকেই বন্যা কবলিত এলাকায় আটকে রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজয়ন। সেই সব মানুষকে যতক্ষণ না উদ্ধার করা হচ্ছে ততক্ষণ সেনা এবং নৌসেনার জওয়ানরা আকাশপথে খাবারের প্যাকেট ফেলছে বলে জানিয়েছেন বিজয়ন।

আরও পড়ুন কেরলে বৃষ্টির পরিমাণ আপনার চোখ কপালে তুলবে, সাহায্যের জন্য করুণ আর্তি বিজয়নের

এ দিকে দুর্গত মানুষদের উদ্ধারে সেনার সাহায্যে ট্রেন চালানো হবে বলে জানিয়েছেন দক্ষিণ রেলের তিরুঅনন্তপুরম শাখার মুখপাত্র। রাস্তাঘাট জলের তলায় ডুবে থাকায় কেরলের বিভিন্ন জায়গায় নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের আকাল দেখা দিয়েছে।

এই আবহে বন্যাদুর্গত কেরলের পরিস্থিতি আকাশপথে পরিদর্শন করার জন্য শুক্রবার বিকেলেই রাজ্যে পৌঁছচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন