উত্তরপ্রদেশের জলসম্পদ মন্ত্রীর সামনেই নদীতে বোতল ছুড়লেন এক বিধায়ক, দেখুন ভিডিও

0
231

লখনউ: নদী দূষণ নিয়ে এক দিকে বড়ো বড়ো কথা বলেন। কী করা উচিত আর কী করা উচিত নয়, সে বিষয়ে জ্ঞান দিতে এতটুকু পিছপা হন না তিনি। এ বারও তা-ই করলেন। সঙ্গী এক বিধায়ককে নদীতে প্লাস্টিকের জলের বোতল ছুড়ে ফেলতে দেখেও, তাঁকে আটকানোর কোনো চেষ্টা তো করেননিই, কিছুক্ষণ পরেই সাংবাদিক সম্মেলনে ফের নদী দূষণ রোধে কথা বলতে দেখা গেল তাঁকে।

তিনি উত্তরপ্রদেশের জলসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী ধরমপাল সিংহ। যিনি নদীতে জলের বোতল ছুড়েছেন, তিনি প্রিয়াঙ্কা সিংহ রাওয়াত, বরাবাঁকির বিধায়ক। উল্লেখ্য, এক পুলিশ আধিকারিককে ‘চামড়া ছাড়িয়ে নেওয়ার’ হুমকি দিয়ে মাস দুয়েক আগেই সংবাদ শিরোনামে এসেছেন এই বিধায়ক।

সরযু নদীর বাঁধ পরিদর্শনে শুক্রবার, লখনউ থেকে একশো কিলোমিটার দূরে বরাবাঁকিতে পৌঁছোন ধরমপাল এবং প্রিয়াঙ্কা। স্থানীয় প্রশাসনের অনুরোধে মোটরচালিত নৌকায় নদী সফর করেন দু’জনে।

ভিডিওতে পরিষ্কার দেখা গিয়েছে যে, নৌকায় ওঠার সময়ে একটি প্লাস্টিকের বোতল থেকে জল খাচ্ছিলেন প্রিয়াঙ্কা। বোতলটা খালি হয়ে যেতে পাশে থাকা জলসম্পদ মন্ত্রী এবং অন্যান্য আধিকারিককে জিজ্ঞেস করেন যে এই বোতল নিয়ে তিনি কী করবেন। কিন্তু তাঁর থেকে বোতলটি কেউ নেননি। এর পর অন্য কিছু না ভেবে সোজা নদীতে ফেলে দেন বোতলটা।

প্রসঙ্গত, নদীতে প্লাস্টিকের বোতল ফেলা আটকাতে পড়শি উত্তরাখণ্ডে নদীর আশেপাশের এলাকায় প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধ করতে বলেছে ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইব্যুনাল তথা জাতীয় পরিবেশ আদালত।

নদী-সফর শেষ করে পূর্বতন অখিলেশ সরকার এবং তার আগের মায়াবতী সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন মন্ত্রীমশাই। নদীবাঁধ মেরামতিতে তারা কিছুই করেনি বলে দাবি করেন ধরমপাল। এক সাংবাদিক প্রিয়াঙ্কাদেবীর জলের বোতল ছোড়ার প্রসঙ্গ নিয়ে এলে ধরমপাল তা এড়িয়ে যান। কোনো উত্তর দেননি প্রিয়াঙ্কাদেবীও।

এই সরযুর জল গিয়ে মেশে গঙ্গাতেই, যে গঙ্গাকে পরিষ্কার করার জন্য তিন বছর আগে কুড়ি হাজার কোটি টাকার একটি প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী তথা ধরমপাল এবং প্রিয়াঙ্কাদেবীদের দলের নেতা নরেন্দ্র মোদী। এই ঘটনায় আরও একবার প্রমাণিত হল প্রধানমন্ত্রী যা-ই বলুন না কেন, তাঁর বার্তা, তাঁর দলের নেতাদের কাছেও এসে পৌঁছোয় না।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here