Gurgaon Metro Station
মহিলার অভিযোগ, কোনো পুলিশই সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেনি। ছবি: প্রতিনিধিত্বমূলক

ওয়েবডেস্ক: কলকাতা হোক বা লন্ডন, বিকৃত মানসিকতার বাড়বাড়ন্ত সর্বত্রই। বছরখানেক আগে কলকাতায় চলন্ত বাসে তরুণীকে লক্ষ্য করে হস্তমৈথুনের ঘটনায় তোলপাড় পড়ে গিয়েছিল। এ বার শুধু হস্তমৈথুনই নয়, কুকর্ম করার পর মহিলার পিঠে বীর্যপাত পর্যন্ত করতে বাঁধল না এক ব্যক্তির।

ঘটনা গুরুগাঁওয়ের কাছে হুডা সিটি সেন্টার মেট্রো স্টেশনের। রাত সাড়ে ন’টা নাগাদ চলমান সিঁড়ি দিয়ে নামছিলেন ওই মহিলা। হঠাৎ তিনি অনুভব করেন, তাঁর পিঠে তরল কিছু পড়ার। তৎক্ষণাৎ পিছনে তাকিয়ে দেখেন, এক ব্যক্তি হস্তমৈথুন করে তাঁর গায়ে বীর্য ফেলছেন। চরম বিরক্তি নিয়ে উপরে উঠে ওই ব্যক্তিকে সজোরে থাপ্পড় মারেন মহিলা। কিন্তু তার পরেও সে ক্ষাম্ত না-হয়ে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করতে থাকে। এমনকী হুমকি পর্যন্ত দিতে থাকে। মহিলা লিখেছেন, “দুর্ভাগ্য যখন এই ঘটনা ঘটছে, তখন প্রত্যক্ষদর্শীরা দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখছেন”।

অসহায় মহিলা ছুটে যান পুলিশ চৌকিতে। সেখানে গিয়ে দেখেন ওই পুলিশ চৌকি বন্ধ। এক রাশ অপমান এবং ভয় নিয়ে কোনো রকমে স্টেশন ছাড়েন মহিলা। টুইটারে উগরে দেন যন্ত্রণা। বিদ্ধ করেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকেও।

মহিলা লিখেছেন, “তিনি সাহায্যের জন্য চিৎকার করেন। কিন্তু অন্য কেউ তো বটেই, পুলিশ পর্যন্ত এগিয়ে আসেনি। এই সুযোগ নিয়েই ওই ব্যক্তি বিনা বাধায় পালিয়ে যায়।”।

একই সঙ্গে তিনি লিখেছেন, “মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল মহিলাদের জন্য বিনাব্যয়ে পরিষেবা চালু করেছেন। কিন্তু সব থেকে আগে প্রয়োজন নিরাপত্তা। সেটারই অভাব প্রতিটা মুহূর্তে আমরা অনুভব করছি, বাস্তব অভিজ্ঞতায়। রাত সাড়ে ন’টার সময় এমন ঘটনার মুখোমুখি হয়ে বাইরে বেরোতে ভয় পাচ্ছি”। মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীকে ট্যাগ করে ওই টুইট করেছেন মহিলা।

[ বিলিওনেয়ার ক্লাব থেকে ছাঁটাই হলেন অনিল অম্বানি! ]

সেই টুইটের সূত্র ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠতেই নড়েচড়ে বসে পুলিশ। তবে অভিযুক্ত এখনও অধরা। পুলিশ জানিয়েছে, খোঁজ চলছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here