Jasleen suicide

ওয়েবডেস্ক: শ্বশুরবাড়ির তরফ থেকে অত্যাচার হয়ে দাঁড়িয়েছিল নিত্যদিনের ঘটনা। আর সহ্য করতে না পেরে তাই গঙ্গায় ঝাঁপ দিলেন কানপুর-নিবাসী জসলিন কৌর। আত্মহত্যার আগের মুহূর্তে নিজের ফেসবুক পেজ-এ পোস্ট করা তাঁর ভিডিও আপাতত আলোড়ন ফেলেছে দেশে।

কানপুর পুলিশ জানিয়েছে, জসলিনের বয়স ৩০ বছর। জয়পুরের বাসিন্দা জসলিনের বিয়ে হয়েছিল কানপুরের ব্যবসায়ী পবনীত সিং গান্ধীর সঙ্গে। স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির লোকজনের সঙ্গে কানপুরের পাণ্ডুনগরের বাড়িতে থাকতেন তিনি।

আরও পড়ুন: স্ত্রী-সহ শ্বশুরবাড়ির মানসিক অত্যাচার, ফেসবুকে লাইভ আত্মহত্যা যুবকের, দেখুন ভিডিও

ভিডিওয় জসলিন জানিয়েছেন, শ্বশুরবাড়ির অত্যাচারের পরিমাণ দিন দিন বেড়েই চলছিল। তা সহ্য করা আর সম্ভব হচ্ছিল না তাঁর পক্ষে। তাই শেষ পর্যন্ত জীবনাবসানের সিদ্ধান্ত নিলেন তিনি।

ফেসবুকে এটুকু জানিয়েই জসলিন ঝাঁপ দেন গঙ্গায়। পাড়ে থাকা কিছু ডুবুরি ঘটনাটি দেখতে পেয়েই জল থেকে তুলে আনে তাঁকে। তার পর ওই ডুবুরিরা তাঁকে নিয়ে যান লালা লাজপত রাই হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসকরা জসলিনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এর পর পুলিশে খবর দেওয়া হলে দেহ সনাক্তকরণ সম্ভব হয়।

যদিও জসলিনের স্বামী এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন। “চার্টার্ড অ্যাকাউট্যান্সির পরীক্ষা দিয়েছিল জসলিন। সেই পরীক্ষায় কৃতকার্য না হতে পেরেই আত্মহত্যা করেছে সে”, জানিয়েছেন পবনীত।

“জসলিনের পরিবারকে খবর দেওয়া হয়েছে। তাঁরা কানপুরে আসছেন। আপাতত দেহ মর্গে রাখা হয়েছে। আমরা তা ময়নাতদন্তের জন্য পাঠাব। তার পরেই ঘটনাটি ঠিক কী, তা বলা সম্ভব হবে”, জানিয়েছে কানপুর পুলিশ।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন