oral sex

ওয়েবডেস্ক: প্রকৃতির নিয়মের বাইরে গিয়ে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করা হলে তা অপরাধ! তেমনটাই দাবি করে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা! এই নিয়ে এর মধ্যেই মামলা উঠেছে শীর্ষ আদালতে। আবেদন জমা পড়েছে, এই ধারা রদের। এর পরিপ্রেক্ষিতে ৫ বিচারপতির বেঞ্চের একজন, ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের বক্তব্য, যদি পায়ুকাম বা মুখমৈথুন দম্পতির মধ্যে সম্মতি সাপেক্ষে হয়, তবে তাকে অপরাধ বলা যাবে না!

এই পরিস্থিতির মধ্যেই গুজরাতের এক মহিলা ৩৭৭ ধারাকে সম্বল করে স্বামীকে গ্রেফতারের আর্জি জানালেন শীর্ষ আদালতে। তাঁর আইনজীবী অপর্ণা ভাট জানিয়েছেন, ২০০২ সালে বাগদানের পরে মাত্র ১৫ বছর বয়সেই গুজরাতের সবরকান্তায় বিয়ে হয় ওই মহিলার। তার পর থেকেই তাঁর পেশায় চিকিৎসক স্বামী তাঁকে মুখমেহনে বাধ্য করে আসছেন! এমনকি স্ত্রীর সম্মতির তোয়াক্কা না করে তাঁদের মৈথুন রেকর্ডও করেন তিনি। স্ত্রী এই সব দাবি না মেটাতে চাইলে তাঁকে মারধর করা হয়।

ফলে বৈবাহিক ধর্ষণ এবং মুখমেহনে বাধ্য করানোর অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন মহিলা। স্বামীও মামলা নিয়ে নিজের যুক্তি অবলম্বন করে দ্বারস্থ হয়েছেন আদালতের। যদিও গুজরাতের উচ্চ আদালত একে ৩৭৭ ধারার অন্তর্ভুক্ত অপরাধ হিসাবেই দেখেছে।

জানা গিয়েছে, শীর্ষ আদালতে মহিলার আবেদন জমা পড়ার পর স্বামীকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছে বিচারপতি এন ভি রমনা এবং এম এম শান্তনাগৌদরের বেঞ্চ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here