লখনউ: ঘরেবাইরে চাপের মধ্যে অবশেষে বুলন্দশহরের ঘটনায় নিহত পুলিশ আধিকারিক সুবোধ কুমার সিংহের পরিবারের সঙ্গে দেখা করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তবে দাদরি-যোগের প্রসঙ্গ তুলে যোগীর চাপ বাড়িয়ে দিলেন নিহত পুলিশ আধিকারিকের বোন।

সোমবার বুলন্দশহরের ঘটনাটি ঘটলেও, সেই ঘটনা নিয়ে বিশেষ মুখ খুলতে দেখা যায়নি যোগীকে। পুলিশ খুনে নীরবতার রাস্তা নিলেও গোহত্যা নিয়ে মুখ খুলেছিলেন তিনি। বলেছিলেন, গোহত্যাকারীদের চরম শাস্তি দিতে হবে। এর পরেই তাঁর সমালোচনায় মুখর হয় বিরোধীরা। এর পরেই ওই পুলিশ আধিকারের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার সিদ্ধান্ত নেন যোগী।

বৃহস্পতিবার লখনউয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন নিহত পুলিশ ইনস্পেক্টরের স্ত্রী। সঙ্গে ছিল তাঁর দুই ছেলে এবং সুবোধকুমারের বোন। বেশ কিছুক্ষণ তাঁদের মধ্যে আলোচনা হয়। সূত্রের খবর এ দিনও সুবোধের বোন ফের অভিযোগ করেন দাদরি-কাণ্ডের তদন্ত করেছিলেন বলেই তাঁর দাদাকে পরিকল্পিত ভাবে খুন করা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন পুলিশ খুন নিয়ে চুপ, যোগীর মুখে শুধু গোহত্যাকারীদের শাস্তি দেওয়ার কথা

গত সোমবার সকালে বুলন্দশহরে ২৫টি গবাদি পশুর দেহ উদ্ধার ঘিরে উত্তেজনা ছড়িয়েছিল। গোহত্যার গুজব ছড়িয়ে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি পথে নামলে ছড়ায় হিংসা। খুন হন পুলিশ ইনস্পেক্টর সুবোধকুমার সিংহ এবং যুবক সুমিতকুমার সিংহ। এই ঘটনায় গোহত্যা এবং হিংসার ঘটনা নিয়ে দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। হিংসার ঘটনায় মূল অভিযুক্ত হিসেবে নাম উঠেছে বজরং দলের নেতা যোগেশ রাজের।

এ দিকে ঘটনার পর থেকেই ফেরার যোগেশ অজ্ঞাতস্থান থেকে একটি ভিডিও বার্তা দিয়েছেন। এই ঘটনায় তাঁর কোনো যোগ নেই বলে সাফ জানিয়ে দেন তিনি। যদিও বজরং দল সূত্রের খবর, ইতিমধ্যে যোগেশকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছে দল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here