মাদুরাই : কোনো পোশাক নয়। শুধু কয়েকটা গয়না দিয়ে ঢাকা সাত জন কুমারী মেয়ের বক্ষদেশ। এই অবস্থায় তাদের মন্দিরে নাচতে বাধ্য করা হয়। তার পর এই ভাবেই তাদের দেবী রূপে পুজোও করা হয় তামিলনাড়ুর মাদুরাইয়ের একটি মন্দিরে। এই পুজো চলে টানা ১৫ দিন। এ ক’দিন মন্দিরের পুরোহিতরাই তাদের দেখাশোনা করেন। যারা বয়ঃসন্ধিতে পোঁছয়নি তাঁরাই দেবীরূপে এই পুজো পায়। এটাই নাকি এখানকার একটা বিশেষ রীতি।

এই রীতির জালে জড়িয়ে যাতে কিশোরীরা কোনো ভাবে অপমানিত না হয় তার জন্য ব্যবস্থা নিয়েছেন মাদুরাইয়ের কালেকটর কে ভীরা রাঘব। তিনি বলেন, এটা একটা প্রাচীন প্রথা। অভিভাবকরা স্বেচ্ছায় তাঁদের কিশোরী মেয়েদের এই পুজায় পাঠান।

কিশোরীরা কোনো ভাবে অপমানিত বা নির্যাতিত হচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখার জন্য একটা তদন্তকারী দল পাঠানো হয়েছে মন্দিরে। পাশাপাশি তাদের শরীর যেন সম্পূর্ণভাবে কাপড়ে ঢাকা থাকে সে নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে গয়না পোষাকের ওপর দিয়ে পরতে।

এই তদন্তকারী দলটি মন্দিরের গোটা ব্যাপারটা তদন্ত করে দেখেছে। তারা জানিয়েছে, মন্দিরে কিশোরীদের ওপর কোনো রকম অপমান বা যৌননিগ্রহ করা হয়নি।

আশেপাশের মোট ৬০টি গ্রামের মানুষ এই পুজোয় আসেন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন