বাবার ছেড়ে যাওয়া ব্যাটন দশ বছর পর ধরে মুখ্যমন্ত্রী হলেন ছেলে

0
শপথ অনুষ্ঠানে ভিড়।

বিজয়ওয়াড়া: ঠিক দশ বছর আগে মৃত্যু হয়েছিল ওয়াইএস রাজশেখর রেড্ডির। আকস্মিক হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায়। তখন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী তিনিই। অত্যন্ত জনপ্রিয় এক নেতা। তাঁর মৃত্যুতে অন্ধ্রের আকাশে কালো মেঘের ঘনঘটা নেমে এল। কার্যত দিশেহারা হয়ে পড়ল কংগ্রেস। আর তার পর থেকে উত্থান শুরু রেজশেখর রেড্ডির ছেলে জগন্মোহনের।

না, তিনি কংগ্রেসের ছিলেন না। সনিয়া গান্ধীর ওপরে একরাশ ক্ষোভ প্রকাশ করে নতুন দল তৈরি করেন তিনি। নাম দেন ওয়াইএসআর কংগ্রেস। বাবার জনপ্রিয়তাকে ঢাল করে তিনিও প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করেন অন্ধ্রের রাজনীতিতে। ২০১৪-এর নির্বাচনে ৭০-এর বেশি বিধানসভা আসনও যেতেন, কিন্তু ক্ষমতা থেকে দূরেই ছিলেন।

পাঁচ বছর পর সেই ছেলেই আরও বড়ো করে প্রত্যাবর্তন করলেন। এ বার ক্ষমতা দখল করলেন বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে। ১৭৫ আসনের মধ্যে ১৫১ আসনই গেল তাঁর দখলে। জগন্মোহন ঝড়ে খড়কুটোর মতো উড়ে গেল টিডিপি। শূন্য হাতে ফিরতে হল কংগ্রেস ও বিজেপিকে। দশ বছর আগে বাবার ছেড়ে যাওয়া সেই ব্যাটনটি ধরেই মুখ্যমন্ত্রী হলেন জগন্মোহন রেড্ডি।

বৃহস্পতিবার মহাসমারোহে রাজ্যের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হলেন জগন্মোহন। এ দিন তাঁকে শপথবাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল ইএসএল নরসিংহ। একটি হুডখোলা জিপে শপথের অনুষ্ঠানে হাজির হন ৪৬ বছর বয়সী জগন। তাঁকে স্বাগত জানানোর জন্য তখন হাততালিতে ফেটে পড়ে জনতা।

আরও পড়ুন তীব্র তাপপ্রবাহ দেশ জুড়ে, পারদ ৫০ ছুঁইছুঁই

জ্যোতিষশাস্ত্রে বিশ্বাসী জগন ঘড়ি ধরে ১২:২৩-এ শপথ নেন। তাঁর শপথের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পড়শি তেলঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও, তামিলনাড়ুর ডিএমকের নেতা স্তালিন।

মুখ্যমন্ত্রী হয়ে জগন্মোহনের কাজ এখন রাজ্যের জন্য বিশেষ মর্যাদা আদায় করা। বিজেপি একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার পর, সে কাজটা যে এখন আরও কঠিন হয়ে গিয়েছে, সেটা নিজেই জানিয়েছেন জগন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.