খাবার দিতে অ-হিন্দু আসছে দেখে অর্ডার বাতিল, জোম্যাটোর পালটা জবাব আপনাকে গর্বিত করবেই

0

ওয়েবডেস্ক: খাবার নয়, খাবার যে পৌঁছোতে আসছে তার ধর্মই বেশি জরুরি মধ্যপ্রদেশের অমিত শুক্লর কাছে। আর তাই যখন দেখলেন অর্ডার করা খাবার পৌঁছে দিতে আসছে একজন মুসলিম, সঙ্গে সঙ্গে সেটি বাতিল করে দিলেন তিনি। ফলাও করে সেটা আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারও করলেন। তার জবাবে ওই ফুড ডেলিভারি সংস্থা এবং তার মালিকের তরফ থেকে যা জবাব এসেছে, তা অমিতের বক্তব্যকে পুরোপুরি শুইয়ে দিয়েছে।

জোম্যাটোর অ্যাপে খাবারের অর্ডার দিয়েছিলেন তিনি। তবে ওই অর্ডার দেওয়ার পর অমিত জানতে পারেন, তাঁর খাবার নিয়ে আসছেন ফৈয়াজ নামের এক মুসলিম ব্যক্তি। সঙ্গে সঙ্গে সেই অর্ডার বাতিল করে দেন অমিত। কারণ? অমিত জানিয়েছেন, কোনো অ-হিন্দুর কাছ থেকে খাবারের ডেলিভারি নেবেন না। ফৈয়াজের বদলে অন্য কাউকে দিয়ে ডেলিভারি করানোর অনুরোধ জানালেও তা খারিজ করে দেয় জোম্যাটো।

https://twitter.com/NaMo_SARKAAR/status/1156217070247268352

অর্ডার বাতিল করে অমিত টাকা ফেরতের দাবি জানালে সেটাও খারিজ করে দেয় জোম্যাটো। সঙ্গে সঙ্গে একের পর এক টুইট করতে শুরু করেন অমিত। টুইটে তিনি লেখেন, “এইমাত্র জোম্যাটোর অর্ডার বাতিল করলাম। আমার খাবার নিয়ে আসছেন এক জন অ-হিন্দু রাইডার। ওরা জানাচ্ছে, আমার রাইডার বদল করবেন না আর অর্ডার বাতিল করলেও টাকা ফেরত দেবে না। আমি বলেছি, ওই ডেলিভারি নিতে আমার উপর জোর খাটানো যাবে না।”

এর পরেই মোক্ষম এক জবাব দেয় অ্যাপ কর্তৃপক্ষ। জোম্যাটোর তরফে অমিতকে টুইটারে পালটা জানানো হয়, “খাবারের কোনও ধর্ম নেই। খাদ্যই ধর্ম।”

এর পর বুধবার সকালে বিষয়টি নিয়ে নিজেই আসরে নামেন জোম্যাটোর প্রতিষ্ঠাতা দীপিন্দ্র গয়াল। এ দিন টুইটারে তিনি লিখেছেন, “আমাদের ক্রেতা, ব্যবসায়িক সহযোগী তথা ভারতের বিবিধতার ভাবাদর্শে আমরা গর্বিত। এই মূল্যবোধে চলতে হলে আমাদের যদি ব্যবসায়িক ক্ষতিও হয় তা হলেও আমরা দুঃখিত নই।”

ব্যাপারটা নিয়ে খোদ জ্যোমাটোর প্রতিষ্ঠাতা আসরে নামায় সম্পূর্ণ অন্য একটা মাত্রা পেয়েছে। এ রকম জবাব বাহবা কুড়িয়েছে অধিকাংশ নেটিজেনের। অনেকেই জানিয়ে দিয়েছেন, ভবিষ্যতে খাবার অর্ডার করতে হলে জ্যোমাটো থেকেই করবেন।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here