নয়াদিল্লি : দেশ জুড়ে ডিজিটাল লেনদেনকে উৎসাহ দিতে দৈনিক এবং সাপ্তাহিক লটারি চালু করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। বৃহস্পতিবার নিতি আয়োগের পক্ষ থেকে এই তথ্য ঘোষণা করেন সিইও অমিতাভ কান্ত। লটারির পাশাপাশি গ্রাহক এবং ব্যবসায়ীদের জন্য থাকছে পুরস্কার। একই দিনে কেন্দ্রীয় অর্থ সচিব শক্তিকান্ত দাস সাংবাদিক বৈঠকে জানান, পর্যাপ্ত পরিমাণে নতুন নোট সরবরাহের ব্যবস্থা করেছে কেন্দ্র।

নিতি আয়োগের ঘোষণা অনুযায়ী ক্রেতাদের জন্য থাকছে ‘লাকি গ্রাহক যোজনা’। ব্যবসায়ীদের জন্য সরকার চালু করছে ‘ডিজি-ধন ব্যাপার যোজনা’। সরকারি সূত্রে খবর, এই দুই প্রকল্প বাবদ ধার্য হয়েছে ৩৪০ কোটি টাকা। এই দুই প্রকল্পের মাধ্যমে ৫০ টাকা থেকে ৩০০০ টাকার মধ্যে ডিজিটাল লেনদেন সম্ভব হবে। সমাজের সব শ্রেণির মানুষের মধ্যে ডিজিটাল লেনদেনকে সুবিধাজনক করার জন্যই সরকারের এই উদ্যোগ, জানালেন অমিতাভ কান্ত।

২৫ ডিসেম্বর ‘বড়দিনের উপহার’ হিসেবে ক্রেতা এবং ব্যবসায়ী, দু’পক্ষের জন্যই থাকছে প্রথম লাকি ড্র। আর মেগা ড্র-এর আয়োজন করা হবে আগামী বছর অম্বেডকর জয়ন্তীতে (১৪ এপ্রিল)। নিতি আয়োগের সিইও বলেছেন, “নিম্ন এবং মধ্যবিত্ত দেশবাসীকে এবং দেশের ছোটো ব্যবসায়ীদের, দেশের ডিজিটাল বিপ্লবে শামিল করার জন্যই কেন্দ্রের এই পদক্ষেপ।”

দৈনিক লটারির লাকি ড্র-এর মাধ্যমে বেছে নেওয়া হবে ৭০০০ জনকে। পুরস্কার বাবদ থাকছে ১ লক্ষ, ১০ হাজার এবং ৫ হাজার টাকা। ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে থাকছে সাপ্তাহিক ৫০ হাজার, ৫ হাজার এবং ২.৫ হাজার টাকার পুরস্কার। এপ্রিলের মেগা ড্র-তে গ্রাহকদের জন্য প্রথম পুরস্কার থাকছে ১ কোটি টাকা। দ্বিতীয় পুরস্কার ৫০ লক্ষ, তৃতীয় পুরস্কার ২৫ লক্ষ। ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় পুরস্কার মূল্য ধার্য হয়েছে যথাক্রমে ৫০ লক্ষ, ২৫ লক্ষ এবং ৫ লক্ষ টাকা।

অন্য দিকে একই দিনে সাংবাদিক বৈঠকে নতুন নোটের উচ্চ সুরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আশ্বস্ত করেছেন কেন্দ্রের অর্থসচিব শক্তিকান্ত দাস। তিনি জানান, নগদ সংকটের মোকাবিলায় বাজারে যথেষ্ট নতুন নোট সরবরাহ করা হচ্ছে। বাজারে কম মূল্যের এবং বেশি মুল্যের, দু’ধরনের নোটের সরবরাহই পর্যাপ্ত। দেশ জুড়ে আড়াই লক্ষ এটিএমে পর্যাপ্ত টাকা সরবরাহের ব্যবস্থাও করছে কেন্দ্র।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here