খবর অনলাইন: বাধা কাটল। বম্বে হাইকোর্ট আগেই খারিজ করে দিয়েছিল। এ বার পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টও খারিজ করে দিল। সুতরাং শুক্রবার ‘উড়তা পঞ্জাব’  মুক্তিতে আর কোনও বাধা রইল না। বম্বে হাইকোর্টের মতো পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টও বৃহস্পতিবার বলেছে, এই ফিল্‌মে পঞ্জাবকে কখনওই খারাপ ভাবে দেখানো হয়নি এবং মাদকাসক্তির পক্ষে কোনও প্রচার চালানো হয়নি।

বম্বে হাইকোর্টের রায়ের পরে কিছু এনজিও এবং রাজনৈতিক নেতা ‘উড়তা পঞ্জাব’-এর মুক্তি বন্ধ করতে পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল। আবেদন জমা পড়ার পর হাইকোর্ট সেন্সর বোর্ডের কর্মকর্তা এবং প্রযোজকদের উপস্থিতিতে ছবিটি দেখে রিপোর্ট দেওয়ার জন্য তার নিরপেক্ষ আইনজীবীকে নির্দেশ দেয়। সেই রিপোর্ট পাওয়ার পর হাইকোর্ট জানিয়ে দেয়, আদালত ছবিটিতে আপত্তিজনক কিছু পায়নি।

ইতিমধ্যে পঞ্জাবের একটি এনজিও বম্বে হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে এবং ছবিটির মুক্তিতে স্থগিতাদেশ চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়। কোর্ট আবেদনটি গ্রহণ করে বৃহস্পতিবার দেড় ঘণ্টা ধরে শুনানি শোনে। কিন্তু পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টে মামলা চালু আছে বলে বম্বে হাইকোর্টের রায়ে হস্তক্ষেপ করতে অস্বীকার করে। বিচারপতি আদর্শ কে গোয়েল এবং বিচারপতি নাগেশ্বর রাওকে নিয়ে গঠিত বেঞ্চ আবেদনকারীদের পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টের রায় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলে এবং ওই রায়ে তাঁরা যদি অসন্তুষ্ট হন তা হলে সুপ্রিম কোর্টে আসার অনুমতি দেয়।

তবে ফের যদি ওই এনজিও সুপ্রিম কোর্টে যায়, তা হলেও সুপ্রিম কোর্ট ছবিটির মুক্তিতে স্থগিতাদেশ দেবে বলে মনে হয় না। কারণ ওই এনজিও-র প্রধান বক্তব্য ছিল, ছবি না দেখেই বম্বে হাইকোর্ট রায় দিয়েছে। পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ কিন্তু ধোপে টিকবে না। কারণ হাইকোর্ট তার নিরপেক্ষ আইনজীবীর রিপোর্টের ভিত্তিতেই রায় দিয়েছে এবং ওই আইনজীবীও ছবিটি দেখেই রিপোর্ট দিয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here