কলকাতা : ফের এসএসকেএম হাসপাতালের বিরুদ্ধে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ উঠল। অভিযোগ, রাজ্যের অন্যতম মাল্টিসুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে রোগীকে অস্ত্রোপচারের পর দীর্ঘদিন ফেলে রাখা হয়েছে।

নদিয়া জেলার কল্যাণীর গয়েশপুরের বাসিন্দা কার্তিক কুণ্ডু। কল্যাণীতে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষের সময় কার্তিকের গলায় গুলি লাগে। প্রথমে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, পরে তাকে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে রেফার করা হয়। একাদশ শ্রেণির ছাত্র কার্তিক গত ২৮ অক্টোবর এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি হয়। তার বাবা কালীসদন কুণ্ডুর অভিযোগ, “আমার ছেলেকে ৫৫ দিন ধরে বিনা চিকিৎসায় হাসপাতালে ফেলে রাখা হয়েছে।”    

কালীসদনবাবুর অভিযোগ, “আমার ছেলেকে ২৮ অক্টোবর হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও আজ পর্যন্ত তার ঠিকঠাক কোনো চিকিৎসা হয়নি। হাসপাতালে নিয়ে আসার পর তার গলায় একটা অপারেশন করা হয়। কিন্তু সেই অপারেশন ডাক্তাররা ঠিক ভাবে করতে পারেননি।”

অস্ত্রোপচারের পর থেকে কার্তিক এনসিপি ব্লকে ১৪ নম্বর বেডে ভর্তি রয়েছে। প্রায় দু’ মাস হতে চলল, ডাক্তারদের কোনো ভ্রূক্ষেপ নেই বলে কালীসদনবাবুর অভিযোগ। তাঁর বক্তব্য, “ডাক্তাররা তাকে অন্য হাসপাতালেও রেফার করছেন না। হাসপাতাল সুপারকে চার বার বলা সত্ত্বেও কোনো সুফল মেলেনি। যে ডাক্তারের অধীনে কার্তিক  ভর্তি আছে, সেই ডাক্তারও আজ নয় কাল, এই ভাবে ঘোরাচ্ছেন, কোনো ব্যবস্থাই নিচ্ছেন না।”

এ বিষয়ে হাসপাতালের ডিরেক্টর মঞ্জু বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আজ পরিবারের তরফে আমাকে লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নেব। যদি ডাক্তারের চিকিৎসায় কোনো গাফিলতি ধরা পড়ে তা হলে সেই ডাক্তারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here