আজ শুক্রবার, মহালয়া। পিতৃপক্ষের শেষদিন। আকাশবাণীর ভোরের অনুষ্ঠান মহিষাসুরমর্দিনী শেষ হওয়ার আগেই কলকাতায় গঙ্গার বিভিন্ন ঘাটে ভিড় উপচে পড়তে শুরু করে। সূর্য ওঠার সঙ্গে সঙ্গেই শুরু হয়ে যায় পিতৃপুরুষদের উদ্দেশে তর্পণ। বৃষ্টির ভ্রূকুটি দূরে সরিয়ে আজ সকাল থেকেই রৌদ্রজ্জ্বল আবহাওয়া। কেউ এক কোমর জলে দাঁড়িয়ে, কেউ বা এক বুক জলে দাঁড়িয়ে পবিত্র মন্ত্রোচ্চারণের মাধ্যমে প্রয়াত পিতা মাতা ও ঊর্ধ্বতন পুরুষদের উদ্দেশে অঞ্জলি দেন। কেউ পুরুত মশাইয়ের সাহায্যে কেউ বা স্ব-উদ্যোগে তর্পণ সারেন। গঙ্গার বিভিন্ন ঘাটে ব্যাপক পুলিশি বন্দোবস্ত করা হয়েছে। যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, তার জন্য প্রশাসনের কড়া নজরদারি রয়েছে। বেলা যত বেড়েছে গঙ্গার ঘাটে ভিড় তত বেড়েছে। যাঁরা গঙ্গার ঘাটে যেতে পারেননি তাঁরা কাছাকাছি জলাশয়ে বা বাড়িতেই তর্পণ সেরেছেন।

আজ মহালয়া। অনেক বনেদি বাড়ির পুজোতেই প্রতিমার চক্ষুদান পর্ব হচ্ছে। ওইসব বাড়িতে গত শনিবার কৃষ্ণা নবমী তিথিতে মা দুর্গার বোধন হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুজোর মূল অনুষ্ঠান শুরু হয়ে গেছে।

রাত পোহালেই প্রতিপদ। শুরু হয়ে যাবে দেবীপক্ষ। পুজোর প্রহর গোনা ঢুকে যাবে অন্তিম পর্যায়ে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here