শিলচরে রেকর্ড বৃষ্টি, বাঁকুড়ায় রেকর্ড গরম, বিভ্রান্তিকর
আবহাওয়া দেশ জুড়ে

0
573

শিলচর ও বাঁকুড়া: আবহাওয়াগত কারণে একই দিনে রেকর্ড করল অসমের শিলচর এবং পশ্চিমবঙ্গের বাঁকুড়া। তবে কারণ দু’টি সম্পূর্ণ ভিন্ন। একটা শহর যখন বৃষ্টিতে নাজেহাল, অন্য শহরে তখন গরমে হাঁসফাঁস অবস্থা। একটা শহর যখন চাইছে বৃষ্টি থেকে মুক্তি পেতে, অন্য শহরের তখন প্রার্থনা এক ফোঁটা বৃষ্টির। এক দিকে যখন পশ্চিম, মধ্য ভারত পেরিয়ে ধীরে ধীরে তাপপ্রবাহের কবলে পড়ছে পূর্ব ভারত তখন রেকর্ড বৃষ্টির সম্মুখীন উত্তরপূর্ব। সব মিলিয়ে দেশ জুড়ে বিভ্রান্তিকর এবং খামখেয়ালি আবহাওয়ার বাড়বাড়ন্ত। 

বৃষ্টিতে সব থেকে খারাপ অবস্থা শিলচরের। পাশাপাশি রেকর্ড পরিমাণে বৃষ্টি হয়েছে গোটা বরাক উপত্যকা জুড়ে। এর ফলে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে শিলচর শহর এবং তার পার্শ্ববর্তী এলাকা। গোটা বরাক এলাকাতেই যান চলাচল বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। গুয়াহাটি থেকে বরাক উপত্যকাগামী বাস পরিষেবা আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। শুধু অসমই নয়, প্রবল বৃষ্টি হয়েছে মেঘালয়েও। গত ২৪ ঘণ্টায় চেরাপুঞ্জিতে মোট বৃষ্টি হয়েছে ১৬৪ মিলিমিটার। জোর বৃষ্টি হচ্ছে নাগাল্যান্ড, মণিপুর, মিজোরাম, ত্রিপুরাতেও।

কী কারণে এই প্রবল বৃষ্টি?

আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তরবঙ্গ এবং লাগোয়া উত্তর বাংলাদেশ অঞ্চলে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে, সেই সঙ্গে বিহার থেকে মণিপুর পর্যন্ত একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখা বিস্তৃত রয়েছে। এর ফলেই বৃষ্টি। আপাতত এই বৃষ্টির হাত থেকে এখনই মুক্তি পাওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। আগামী পাঁচ দিন উত্তর পূর্বের সবক’টি রাজ্যেই ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কবার্তা দিয়ে রেখেছে আবহাওয়া দফতর। এ রকম বৃষ্টি চলতে থাকলে অসময়ে বন্যার আশঙ্কাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

এ দিকে উত্তরপূর্ব ভাসলেও, দেশের বাকি অংশে এখনও সূর্যের রুদ্ররূপ অব্যাহত। মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ পেরিয়ে ক্রমশ পূর্ব দিকে থাবা বসাতে শুরু করেছে তাপপ্রবাহ। বৃহস্পতিবার বাঁকুড়ায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪৩.৫ ডিগ্রি। এ যাবৎকালে মার্চ মাসে যা সর্বোচ্চ। বৃহস্পতিবারই তাপপ্রবাহের কবলে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূম এবং পশ্চিম মেদিনীপুর। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস দু’তিন দিন এই তাপপ্রবাহ চলবে। 

তবে কলকাতাবাসীর কাছে একটা স্বস্তির খবর। আপাতত কলকাতা শহরে তাপপ্রবাহের কোনো সম্ভাবনা নেই। এর পেছনেও রয়েছে উত্তরবঙ্গের ওপর স্থিত ঘূর্ণাবর্তটি। এর প্রভাবে বঙ্গোপসাগর থেকে প্রচুর পরিমাণে জলীয় বাষ্প ঢুকছে, সেই সঙ্গে বইছে দখিনা বাতাস। আগামী কয়েক দিন কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা স্বাভাবিক অর্থাৎ ৩৫-৩৬ ডিগ্রির আশেপাশেই থাকবে বলে আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস। 

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here