চেন্নাই: বিভিন্ন মন্দির ও মঠের হাতিদের চাঙ্গা করার জন্য বসেছে শিবির। কোয়ম্বত্তুর জেলার মেত্তুপালায়মের তেক্কামপাট্টিতে ভবানী নদীর ধারে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে এই শিবির। শিবির চলবে ১০ মার্চ পর্যন্ত। আপাতত ৩০টি হাতি ওই শিবিরে যোগ দিয়েছে। আরও ৪টি হাতি দু’-এক দিনের মধ্যে যোগ দেবে।

হাতিদের জন্য এই শিবির করার পরিকল্পনাটি প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার মস্তিষ্কপ্রসূত। মঠ-মন্দিরে নানা ধরনের কাজ করতে করতে হাতিগুলো থকে যায়, ক্লান্ত হয়ে পড়ে। হাতিদের তারুণ্য, প্রাণচঞ্চলতা, উচ্ছলতা কমে যায়। তাই বছরে একবার করে তাদের শিবিরে এনে উপযুক্ত খাবার খাইয়ে, আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা করে, ওষধি-জলে স্নান করিয়ে চাঙ্গা করা হয়।

elephant-camp

হাতিদের বয়স এবং ওজন হিসাব করে তাদের ডায়েটের ব্যবস্থা করা হয়েছে শিবিরে। আখ, কলা, তালপাতা, ধান, ছোলা ইত্যাদি নিয়মিত খাবার ছাড়াও চিকিৎসকদের পরামর্শে নানা ধরনের ওষুধও দেওয়া হবে।

elephant-camp2

গত বছর বাইরের বন্যপ্রাণীরা এসে শিবিরে হামলা চালিয়েছিল। এ বার যাতে সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় এবং হাতিরা যাতে শিবির ছেড়ে চলে যেতে না পারে তার জন্য শিবির ঘিরে সৌর বেড়া লাগানো হয়েছে। মাহুতদেরও থাকার ব্যবস্থা হয়েছে শিবিরে। ১৬টি সিসিটিভি ক্যামেরা ছাড়া একটি উচ্চ শক্তিসম্পন্ন নজরদারি ক্যামেরাও লাগানো হয়েছে শিবিরে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন