খবর অনলাইন: এ বার বিমানযাত্রা মধ্যবিত্তের নাগালের মধ্যে চলে আসতে চলেছে। যাত্রীসাধারণ যদি এমন কোনও জায়গা বিমানে যান, যেখানে এক ঘণ্টার মধ্যেই পৌঁছনো যায় তা হলে গুনতে হবে আড়াই হাজার টাকা। আর বিমানযাত্রা যদি আধ ঘণ্টার মধ্যে শেষ হয়, তা হলে ভাড়া হবে ১২০০ টাকার মধ্যে। কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন বিমান পরিবহণ নীতিতে বুধবার সিলমোহর দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।

দেশে ৩৪টি আঞ্চলিক বিমানবন্দর আছে। মেট্রো শহরগুলির বিমানবন্দরের তুলনায় আঞ্চলিক বিমানবন্দরগুলিতে ট্র্যাফিক খুব কম। এই বিমানবন্দরগুলির সংযোগকারী রুটগুলিকে লাভজনক করার জন্যই সরকার ভাড়ার এই নীতি ঘোষণা করেছে। এ ছাড়াও সরকার আরও কিছু ব্যবস্থার কথা ঘোষণা করেছে। যেমন, এয়ারপোর্ট চার্জ বিলোপ করা, সার্ভিস ট্যাক্স এবং এভিয়েশন টার্বাইন জ্বালানিতে এক্সাইজ শুল্ক কমানো ইত্যাদি। রাজ্য সরকার নিখরচায় পুলিশ ও দমকল পরিষেবা দেবে। এ ছাড়াও বিদ্যুৎ, জল এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে যে খরচ হবে তাতে ছাড় দেবে রাজ্য। বিমানসংস্থাগুলির যে ক্ষতি হবে তা পুষিয়ে দিতে সরকার একটি ভায়াবিলিটি গ্যাপ ফান্ড (ভিজিএফ) নামে একটি তহবিল গড়বে এবং সেই তহবিলে টাকা আসবে অন্তর্দেশীয় উড়ানে সামান্য লেভি (সম্ভবত ২%) বসিয়ে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here