এগারো বছর পর জেল থেকে বেরিয়েই নীতীশ কুমারকে তীব্র আক্রমণ করলেন এক কালে বিহারের ত্রাস, প্রাক্তন আরজেডি সাংসদ মহম্মদ সাহাবুদ্দিন। যদিও এই আক্রমণকে গুরুত্বহীন বলে উড়িয়ে উড়িয়ে দিয়েছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী।  

শনিবার সকালে ভাগলপুর জেল থেকে জামিনে মুক্তি পান সিওয়ানের চার বারের সাংসদ সাহাবুদ্দিন। তিনি যে লালুপ্রসাদ যাদবের ‘বিশ্বস্ত সৈনিক’ সেটা মনে করিয়ে সাহাবুদ্দিন বলেন, “গোটা দেশ জানে, গোটা রাজ্য জানে আমি কাকে মেনে চলি। আগেও তাকে মেনে চলেছি, ভবিষ্যতেও মানবো”। এরপরই নীতীশ কুমারকে আক্রমণ করেন তিনি। তাঁর কথায়, “নীতীশ কুমার তালেগোলে মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন। লালু যাদবই আমার নেতা”। এই মন্তব্যের কিছুক্ষণ পরেই রাঁচি বিমানবন্দরে নীতীশকে চেপে ধরেন সাংবাদিকরা। তিনি অবশ্য একে বিশেষ গুরুত্ব দিতে চাননি। তাঁর কথায়, “এটা আমার কাছে গুরুত্বহীন। এর উত্তর দেওয়ার কিছু নেই”।

উল্লেখ্য ২০০৫-এ মুখ্যমন্ত্রী হয়ে সিওয়ানে সাহাবুদ্দিনের সন্ত্রাস মুছে ফেলার প্রতিজ্ঞা নিয়েছিলেন নীতীশ। এর কয়েক মাসের মধ্যেই একটি খুনের ঘটনায় জেল হয় সাহাবুদ্দিনের। কিন্তু তখন বিহারের রাজনীতির সমীকরণ ছিল ভিন্ন। লালু আর নীতীশে তখন আদায় কাঁচকলায় সম্পর্ক। সমীকরণ পালটে যায় গত বছর, যখন বিজেপিকে হারানোর জন্য জোটবদ্ধ হয় লালুর আরজেডি আর নীতীশের জেডিইউ। বিজেপিকে ধূলিসাৎ করে বিহারের মসনদ দখল করে এই ‘মহাজোট’।

সব জেনেও জেল থেকে বেরিয়েই কেন সাহাবুদ্দিন কেন এমন মন্তব্য করলেন, এখন তা নিয়েই জল্পনায় বিহারে রাজনৈতিক মহল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here