হায়দরাবাদ: ২০৭-৪ [যুবরাজ ৬২ (২৭), এনরিকেস ৫২ (৩৭), চহ্বল ১-২২]

বেঙ্গালুরু: ১৭২ [গেল ৩২(২১), কেদার ৩১(১৬), ভুবনেশ্বর ২-২৭]

হায়দরাবাদ: যাঁর জন্য বছরের গড়ায় ভারতীয় দলে সুযোগ পেয়েছিলেন, আইপিএলের প্রথম ম্যাচে একার হাতে তাণ্ডব চালিয়ে তাঁর দলকেই হারালেন যুবি। চোটের জন্য এ দিন অবশ্য খেলেননি বেঙ্গালুরু অধিনায়ক বিরাট। গত কয়েকটি আইপিএলে দাগ কাটতে পারেননি। প্রত্যাশামতো পারফর্ম করতে না পারায় ২০১৪, ২০১৫ এবং ২০১৬-এর আইপিএলে তিনটে আলাদা দলে খেলতে হয়েছিল তাঁকে। এ বার অবশ্য তিনি আরও প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। বছরের শুরুতেই ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজে তুখোড় ফর্মের ঝলক দেখিয়েছেন তিনি। সেই ফর্ম যে তাঁর এখনও রয়েছে সেটাই দেখা গেল এ দিন তাঁর বিধ্বংসী ইনিংসে।

বিরাটের অনুপস্থিতিতে এ দিন বেঙ্গালুরুর হয়ে টস করতে নামেন শেন ওয়াটসন। টসে জিতে ফিল্ডিং-এর সিদ্ধান্ত নেন তিনি এবং সেখানেই বুমেরাং প্রমাণিত হয় তাঁর সিদ্ধান্ত। শুরুতেই ওয়ার্নারকে হারালেও, হায়দরাবাদ ইনিংসকে টেনে নিয়ে যান শিখর ধওয়ান এবং মজেস এনরিকেস। শিখর ফিরে যেতে নামেন যুবি এবং আরসিবির কবজা থেকে প্রায় একার হাতেই ম্যাচ বার করে নিয়ে যান। শুরুতে ধুমধাড়াক্কা চালিয়ে দলকে দু’শো পার করিয়ে দেন বেন কাটিং।

দশম আইপিএলের প্রথম দিন নিঃসন্দেহে স্মরণীয় দিন হয়ে থাকবে আফগানিস্তান ক্রিকেটের জন্য। আইপিএলে অভিষেক ঘটিয়েই প্রভাব ফেলে গেলেন আঠারোর আফগানি স্পিনার রশিদ খান। যখনই বেঙ্গালুরু রানের গতি বাড়িয়েছে, আঘাত হেনেছেন রশিদ। তাই ক্রিস গেল বা কেদার জাদব ছোটোখাটো ইনিংসে জ্বলে উঠলেও বড়ো ইনিংস খেলতে ব্যর্থ তাঁরা। আস্কিং রেট সে ভাবে বাড়তে না দিলেও ঘনঘন উইকেট পতন ভুগিয়েছে বেঙ্গালুরুকে। ৩৫ রানে জিতল হায়দরাবাদ। গত ২৩টি ম্যাচে এই প্রথম বার অলআউট হল বেঙ্গালুরু।

প্রথম ম্যাচ হেরে কিছুটা ধাক্কা খেলেও, এখনও অনেক ম্যাচ বাকি। তাই ঘুরে দাঁড়াতে পারবে তারা, এই আশাই এখন আরসিবি শিবিরে।

দেখুন যুবরাজের ইনিংসের কিছু ঝলক

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রাক্তনদের সংবর্ধনা

ম্যাচের ঘণ্টা খানেক আগে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে সূচনা হয় এ বারের আইপিএল-এর। প্রথমেই সংবর্ধনা দেওয়া হয় সৌরভ, সচিন, লক্ষ্মণ, সহবাগকে। গলফ কার্টে স্টেডিয়ামের একটা রাউন্ড দিয়ে অনুষ্ঠান মঞ্চে পৌঁছোন তাঁরা। সৌরভ বলেন, “আইপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান কোনো অংশে ফুটবল বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের থেকে কম কিছু নয়।” অন্য দিকে সহবাগ বলেন, তিনিই একমাত্র ক্রিকেটার যিনি ক্রিকেটের তিনটে ফরম্যাটই টি ২০ মেজাজে খেলেছেন। অন্য দিকে আইপিএলের স্মৃতি রোমন্থন করেন সচিন। লক্ষ্মণের কথায়, “আইপিএলের ফলে ক্রিকেটের মান অনেক বদলেছে।” সংবর্ধনার পর কয়েকটি বলিউডি গানে মঞ্চ মাতান অভিনেত্রী এমি জ্যাকসন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here