হাসপাতালে ভাঙচুরের পরে।

ওয়েবডেস্ক: চিকিৎসায় গাফিলতিতে রোগীর মৃত্যু। এই অভিযোগে হাসপাতালে তাণ্ডব চালাল রোগীর পরিবার। উত্তেজিত জনতার মারে গুরুতর জখম চিকিৎসক। 

ঘটনাটি ঘটেছে হেমতাবাদ হাসপাতালে। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার রাত ১০টা নাগাদ হেমতাবাদ ব্লকের ছোট কান্তর এলাকার এক প্রৌঢ়া শ্বাসকষ্ট ও উচ্চ রক্তচাপ জনিত সমস্যা নিয়ে হেমতাবাদ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।সেই সময় হেমতাবাদ হাসপাতালের চিকিৎসক বিপুল ঘোষ প্রাথমিক চিকিৎসার পর রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে রেফার করেন ওই রোগীকে।

তবে রায়গঞ্জ নিয়ে যাওয়ার আগেই ওই রোগীর মৃত্যু হয়। এর পর চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলে হেমতাবাদ হাসপাতালে ফিরে এসে ভাঙচুর চালায় রোগীর পরিবার। সেই সঙ্গে বেধড়ক মার দেওয়া হয় চিকিৎসক বিপুল ঘোষকে। জখম চিকিৎসক বর্তমানে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

খবর পেয়ে হেমতাবাদ থানার ওসি বিশ্বনাথ মিত্রের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে আসে। মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। হাসপাতালের অভিযোগের ভিত্তিতে সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুর ও কর্তব্যরত চিকিৎসককে মারধরের অভিযোগের তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।পুলিশ সুত্রে খবর এখনও পর্যন্ত চার জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here