hunger strike in medical college

কলকাতা: মেডিক্যাল কলেজে ডাক্তারি পড়ুয়াদের অনশন শুক্রবার এগারো দিনে পড়ল। অনশন শুরু হয়েছিল ছ’ জন ছাত্রকে নিয়ে, এখন অনশনকারী ছাত্রদের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১-এ। রোজই সংখ্যাটা বাড়ছে। এদের মধ্যে বেশ কয়েক জন পড়ুয়ার স্বাস্থ্যের অবস্থা খুব খারাপ, দু’ জন তো গুরুতর অসুস্থ। তবুও সমস্যা মেটানোর ব্যাপারে কলেজ কর্তৃপক্ষের কোনো হুঁশ নেই।

অনশনরত ছাত্রদের সমর্থনে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কর্মবিরতি শুরু করেছেন দেড়শো ইন্টার্ন। বেশ কয়েক জন হাউস স্টাফও তাতে শামিল হয়েছেন। সব মিলিয়ে কার্যত অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে।

বৃহস্পতিবার রাতে শোনা গিয়েছিল, একটা সমাধানসূত্র নাকি মিলেছে। ১৫০ জন পড়ুয়ার হোস্টেলের দাবি রয়েছে। মেডিক্যাল কলেজ কাউন্সিল নাকি ১০০ জন পড়ুয়ার থাকার জায়গা নির্ধারিত করছে, বাকি ৫০ জন পড়ুয়ার ব্যবস্থা ধাপে ধাপে হবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। পরে বোঝা যায়, অনশনরত পড়ুয়ারা যাতে মৌখিক আশ্বাসে তাঁদের অনশন তুলে নেন, তার জন্যই এ কথা ছড়ানো হচ্ছে।

ইতিমধ্যে বৃহস্পতিবার রাত দশটা নাগাদ এক বিশাল পুলিশ বাহিনী হাসপাতাল চত্বরে ঢোকে। এ নিয়ে বেশ উত্তেজনা ছড়ায়। খবর রটে যায়, পড়ুয়াদের অনশন জোর করে ভেঙে দেওয়ার জন্যই এত পুলিশ এসেছে। তবে আধ ঘণ্টা পর ওই বাহিনী চলে যায়। হঠাৎ কেন পুলিশ এল, তার কোনো সদুত্তর মেলেনি।

কলেজের বর্তমান অধ্যক্ষ উচ্ছ্বল ভদ্র অসুস্থ হয়ে এসএসকেএমে ভর্তি। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রামানুজ সিংহ জানিয়েছেন, ছাত্রদের হোস্টেল সমস্যা নিয়ে আলোচনা চলছে। কত দ্রুত কী করা যায় তা নিয়ে ভাবনাচিন্তা চলছে।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here